ঢাকা, বুধবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

লালন অনুসারী বাউলদের ওপর আবারও হামলা (ভিডিও)

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৪:৩৩, ১৪ নভেম্বর ২০২২

লালন অনুসারী বাউলদের ওপর আবারও হামলা করেছে মৌলবাদী সন্ত্রাসীরা। কুষ্টিয়ার দৌলতপুর আখড়া বাড়িতে এ হামলার পর আটক হয়নি চিহ্নিতরা। লাউবাড়িয়া উত্তরপাড়া জামে মসজিদের সভাপতির নেতৃত্বে এই হামলা হয়, অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। 

বাৎসরিক সাধুসঙ্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা বাউলেরা। 

প্রতিবছর ৫ নভেম্বর দৌলতপুরের পলান ফকির লাউবাড়িয়া আশ্রমে আয়োজন করেন সাধুসঙ্গ আর মানবতাবাদী দর্শন আলোচনার। অনুষ্ঠান শেষে বাউলেরা যখন আলাপচারিতায় ব্যস্ত তখনই লাঠিসোটা নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায় মৌলবাদী চক্র। হামলা হয় আশ্রমবাড়ির নারীদের উপরও।

আহত বাউলরা জানান, জোড়হাত করলেও শুনলো না, মারধর করে শুইয়ে দিল।

এ হামলায় নেতৃত্ব দেন স্থানীয় মসজিদ কমিটির সভাপতি। অভিযুক্ত একরাম হোসেনের মেয়ে স্বীকারও করেছেন তার বাবার সম্পৃক্ত থাকার ব্যাপারটি। গত ৩ বছর ধরেই একরাম সাধুসঙ্গ বন্ধের পাঁয়তারা করছিলেন। 

একরাম হোসেনের মেয়ে বলেন, “আমার বাবা ৩ বছর ধরে বলছেন যে, মসজিদের সামনে এটা তোমরা করোনা।”

ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে মৌলবাদীচক্রের আস্ফালন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন কুষ্টিয়া জেলা সাংস্কৃতি জোটের কর্মীরা। 

সাংস্কৃতিক সংগঠক সৈয়দা হাবিবা বলেন, “এই নোংরা ইতিহাস যারা সৃষ্টি করলো তাদের উপযুক্ত শাস্তি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া যে, লালনের পবিত্রভূমিতে এরকম ঘটনার পুনরাবৃত্তির আর কখনও ঘটবে না।”

সাংস্কৃতিক কর্মি মনিরুল ইসলাম বাবু বলেন, “যারা করেছেন এদেরকে যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব বিচারের আওতায় আনা উচিত।”

বাউলদের উপর হামলার ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে দৌলতপুর থানায়। ঘটনার পর থেকে পলাতক মসজিদ কমিটির সভাপতিসহ অন্যরা। 

কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার খাইরুল আলম বলেন, “বিষয়টি এজাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।”

লালন, রবীন্দ্রনাথ, মীর মশাররফের স্মৃতিধন্য কুষ্টিয়ার বিভিন্ন আখড়াবাড়িতে মাঝেমধ্যেই হামলা হচ্ছে। এসব ঘটনার বিচার না হওয়ায় শঙ্কায় আছে বাউল সম্প্রদায়।   

এএইচ


Ekushey Television Ltd.

© ২০২৩ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি