ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০২৪

পাষাণ্ড পিতার একি কাণ্ড!

নড়াইল প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ০৯:১৪, ১ মার্চ ২০২৩

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার শালনগর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামে আট মাসের শিশু সন্তানকে গাছে ঝুলিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ অভিযুক্ত বাবা মামুন শেখকে (৩৬) গ্রেফতার করেছে। 

গ্রেফতার মামুনকে মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামুনের প্রথম স্ত্রী কুলসুম বেগম গত সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাদী হয়ে স্বামীসহ সতীনের বিরুদ্ধে লোহাগড়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, লোহাগড়ার রঘুনাথপুর গ্রামের মামুন শেখ তার প্রথম স্ত্রী কুলসুম বেগমের অমতে মাফুজা আক্তার সাথীকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দ্বিতীয় বিয়ের পর মামুন তার প্রথম স্ত্রী কুলসুমসহ তিন সন্তানকে ভরণ-পোষণ না দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছিলেন। 

এ ঘটনার জের ধরে গত সোমবার দুপুর ২টার দিকে এক লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে কুলসুমকে স্বামী মামুন লাঠি দিয়ে বেদম মারধর এবং সতীন মাফুজা আক্তার সাথী গলা চেপে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা চালান। 

এ সময় কুলসুম বেগমের আট মাসের শিশু সন্তান আল হাবিবকে ঘর থেকে তুলে আম গাছের ডালে মাথা নিচের দিকে দিয়ে পায়ে রশি বেধে নির্মম নির্যাতন চালানো হয়। কুলসুম বেগম ও তার শাশুড়িসহ প্রতিবেশিরা শিশু হাবিবকে রক্ষা করতে গেলে মামুন শেখ তাদের মারপিটসহ ভয়ভীতি ও হুমকি দেয়। 

এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ অভিযুক্ত বাবা মামুন শেখকে গ্রেফতার করেছে। 

কুলসুম বেগমের ১৩ বছরের দাম্পত্য জীবনে দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

এ ঘটনায় বিভিন্ন মহলে নিন্দার ঝড় উঠেছে। সবাই অভিযুক্ত মামুন শেখের কঠিন শাস্তি দাবি করেন।

লোহাগড়া থানার ওসি নাসির উদ্দিন বলেন, মামুন শেখকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এএইচ


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি