ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০২৪

স্বস্তি ফিরেছে বান্দরবানের দুর্গম এলাকায় (ভিডিও)

নজরুল ইসলাম টিটু, বান্দরবান থেকে

প্রকাশিত : ১১:৪৬, ২৩ নভেম্বর ২০২৩

৭ মাস পর সেনাবাহিনীর সহায়তায় নিজ গ্রামে ফিরতে পেরে স্বস্তি ফিরেছে বান্দরবানের দুর্গম এলাকার বাসিন্দাদের মাঝে। একে একে খুলতে শুরু করেছে বন্ধ থাকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো। চলতি বছরের এপ্রিল থেকে কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্টের আতঙ্কে রুমা রোয়াংছড়ি ও থানচি উপজেলার দুর্গম বিভিন্ন পাড়ার বাসিন্দারা এলাকা ছেড়ে চলে যায়। 

বান্দরবানের রুমা, রোয়াংছড়ি ও থানচি উপজেলার দুর্গম বিভিন্ন পাড়ার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো এখন মুখর। কেএনএফ’র আতঙ্কে ৭ মাস আগে বন্ধ হয়ে যায় স্কুলগুলো। সম্প্রতি কেএনএফ’র সাথে শান্তি কমিটির বৈঠকের পর সম্প্রতি সেনাবাহিনীর সহায়তায় নিজ গ্রামে ফিরে আসে বিভিন্ন পাড়া থেকে পালিয়ে যাওয়া বাসিন্দারা। 

এছাড়াও স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সড়কে যানচলাচল, কৃষি পণ্য পরিবহন ও স্থানীয়দের যাতায়াত। এতে স্বস্তি ফিরেছে দুর্গম এলাকার বাসিন্দাদের মাঝে। আর দীর্ঘদিন পর বিদ্যালয়ে আসতে পারায় খুশি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। 

শিক্ষার্থীরা জানান, সব সময় স্কুলে আসতে আমাদের ভালো লাগে।

অভিভাবক জানান, কোনো অসুবিধা নাই, এখন আমরা সুন্দরভাবে থাকতে পারছি।

শান্তি আলোচনার পর থেকে স্থানীয়দের জীবনমান স্বাভাবিক হচ্ছে বলে জানান রোয়াংছড়ি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান।

চেয়ারম্যান  মেহ্লাঅং মার্মা বলেন, “সবার মাঝে পূর্বের ন্যায় নিরাপত্তা ফিরে এসেছে, যার কারণে অনেকে পাড়ায় চলে এসেছে।

এদিকে দুর্গম এলাকার বাসিন্দাদের নিরাপত্তা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বাসস্থানসহ সব ধরনের সহযোগিতার কথা জানান সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা।

বান্দরবান সদর জোনের লেফটেন্যান্ট কর্ণেল মাহমুদুল হাসান বলেন, “যারা ফেরত আসবে তাদের জন্য শিক্ষা সামগ্রী ও শীত বস্ত্র বিতরণের পরিকল্পনা রয়েছে। পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের সহযোগিতায় রাস্তার সংস্কার কাজ শীঘ্রই শুরু করা হবে।”

চলতি বছরের এপ্রিল মাসে কেএনএফ’র আতঙ্কে বন্ধ হয়ে যায় রুমা রোয়াংছড়ি ও থানচি উপজেলার ৬টিরও বেশি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এএইচ


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি