ঢাকা, শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, || অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৮

বিশ্বে প্রভাব হারাচ্ছে চীন: অস্ট্রেলিয়া

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৯:২৩, ২৪ এপ্রিল ২০২১

চীনের বেল্ড অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ চুক্তি থেকে অস্ট্রেলিয়া নিজেদের প্রত্যাহার করে নেয়ার পর দুই দেশের সম্পর্ক চরম তিক্ত হয়ে উঠেছে। অস্ট্রেলিয়ার স্ট্র্যাটেজিক পলিসি ইনস্টিটিউটের কর্মকর্তা মাইকেল শোয়েব্রিজ জানিয়েছেন, এই বিপদজনক চুক্তিটি বাতিল করা নিয়ে চীন ‘নেকড়ে যোদ্ধাদের’ মতো করে যেভাবে প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছে তা বেইজিংয়ের ‘বড় ধরনের লক্ষ্য’ অর্জনকেই ব্যাহত করবে। আর এভাবে দেশটি বিশ্বে তাদের প্রভাব হারিয়ে ফেলছে। 

নতুন বৈদেশিক সম্পর্ক আইন ব্যবহার করে বেইজিং ও অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজ্য ভিক্টোরিয়ার মধ্যে বেল্ড অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ চুক্তিটি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের উপস্থিতিতে বাতিল হয়। ২০১৮ সালে স্বাক্ষরিত চুক্তিটি ছিলো চীন ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অবকাঠামো খাতে প্রথম কোন চুক্তি। জাতীয় স্বার্থেও সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ন উল্লেখ করে চীনের দুটি এবং ইরান, সিরিয়ার সঙ্গে দুটি চুক্তি বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রিয় সরকার। এ চারটি চুক্তিই ভিক্টোরিয়া রাজ্য সরকারের মাধ্যমে স্বাক্ষরিত হয়েছিলো। অস্ট্রেলিয়া চুক্তি বাতিলের পর বেইজিং ও ক্যানবেরার মধ্যে কূটনৈতিক এবং বাণিজ্যিক উত্তেজনা বেড়েই চলেছে। 

স্কাই নিউজকে শোয়েব্রিজ এ প্রসঙ্গে বলেন, অস্ট্রেলিয়ায় নিয়োজিত চীনের রাষ্ট্রদূত চেং জিংগিয়ে এরইমধ্যেই ‘নেকড়ে যোদ্ধার মতো’ আচরণ শুরু করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক জবরদস্তির হুমকি দেয়ার কারণে আমরা তাদের ক্ষমতা হ্রাসের সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাধ্য হচ্ছি আমরা। চীনের সঙ্গে প্রগাঢ় অর্থনৈতিক সম্পর্কে এটি বড় ধরনের ঝুঁকি সৃষ্টি করবে।’ 

তিনি আরো বলেন, চীনের এই প্রতিক্রিয়া বেইজিংয়ের বৃহৎ লক্ষ্য পূরণের ক্ষেত্রেই অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে। বেইজিংয়ের এই ক্রোধ এবং উন্মোত্তের মতো আচরণ আর কিছুই না শুধুমাত্র তাদের স্বার্থেরই ক্ষতি করবে। 

শোয়েব্রিজ জানান, ‘অস্ট্রেলিয়ার শীতল আচরণ আর বেইজিংয়ের উন্মোত্ততার এই বৈপিরত্য বিশ্বব্যাপি চীনের প্রচ্ছন্ন ক্ষমতাকে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত করছে। গত বছরের শেষ থেকে এ বছরের মধ্যে যা পুরোপুরি ভেঙ্গে পড়তে দেখা যাবে। সূত্র: স্কাই নিউজ

এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি