ঢাকা, সোমবার   ১৭ মে ২০২১, || জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৮

ডিজিটাল আইনের অপপ্রয়োগ হবে না: প্রধানমন্ত্রী

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:৩৭, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ২৩:৩৮, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

সম্প্রতি মন্ত্রীসভায় অনুমোদিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কোন অপপ্রয়োগ হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাংবাদিকদের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে উদ্বেগ দেখা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেউ অপকর্ম না করলে ডিজিটাল আইনের অপপ্রয়োগ হবে না।

প্রস্তাবিত ডিজিটাল আইনের মাধ্যমে সাংবাদিকদের পেশাগত ঝুঁকি বাড়বে কিনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। ইতালি ও ভ্যাটিকেন সিটিতে চারদিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে দেশে ফেরার পর আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

আজ সোমবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকালে গণভবনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এদিকে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের ঘোষণা দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘আপনি সব সময় ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক বন্ধুদের বেতন কাঠামোর আওতায় আনার কথা বলেছেন। কিন্তু ১৯৭৪ সালের যে আইন, সেটি পূর্ণাঙ্গভাবে সংশোধিত আকারে না পাওয়ার কারণে এটা এখনও বিলম্বিত হচ্ছে। এবিষয়ে আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মাননীয় তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, আগামী জুনের অধিবেশনে এটি সংসদে পাস হবে। আরেকটি বিষয়, ৫৭ ধারা বাদ দিয়ে ডিজিটাল আইন হয়েছে, এটি নিয়েও বিতর্ক আছে। আমরা সাংবাদিক সমাজের পক্ষ থেকে একটি কথা বলি ডিজিটাল ক্রাইম হচ্ছে, সাইবার ক্রাইম হচ্ছে। এসব মোকাবেলা করার জন্য ডিজিটাল আইন দরকার, সাইবার আইন দরকার। এবিষয়ে আমাদের কোন দ্বিধা নেই। আমরা এ আইনের পক্ষে। কিন্তু আমরা দেখেছি, আইনটি কখনও কখনও গণমাধ্যমের বিরুদ্ধে ও গণমাধ্যমের পেশাদারিত্বের বিরুদ্ধে ব্যবহার করার সুযোগ রয়েছে। কাজেই যে আইনটির খসড়া আপনি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করেছেন, আমরা মনে করি, চূড়ান্ত অনুমোদনের আগে আইনটি আলোচনা করে নিলে সাংবাদিকদের ক্ষেত্রে অপপ্রয়োগ হবে না, এটি নিশ্চিত করা যায়।’

এদিকে নবম ওয়েজ বোর্ডের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনাদের ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মালিকপক্ষই প্রতিনিধি পাঠাতে দেরি করেছে। না হলে তো আমরা আরও আগেই করে দিতে পারতাম। আর ১৯৭৪ সালের আইনটি আধুনিকায়ন করার প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। কাজেই এটা হবে।’

সাইবার আইনের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আপনাদের এত আশঙ্কা কেন, সিআরপিসি আইনেও ছিল, কেউ মানহানির অভিযোগ করলে সাংবাদিকদের গ্রেফতারের বিষয় ছিল। আমি তা সংশোধন করে সমন জারির মধ্যে নিয়ে এসেছি। আর কেউ যদি কোনও অপকর্ম না করে তাহলে অপপ্রয়োগ হবে কেন? একটা আইন পাস করার জন্য অনেকগুলো ধাপ অতিক্রম করতে হয়। এটা এখনও প্রক্রিয়াধীন।’

কেআই/ এমজে

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি