ঢাকা, ২০১৯-০৭-১৬ ১২:১৮:১৯

এখন কী করবে কংগ্রেস?

 প্রকাশিত: ১১:৩১ ২৮ মে ২০১৯   আপডেট: ১১:৩৪ ২৮ মে ২০১৯

ভারতে সদ্য অনুষ্ঠিত লোকসভা নির্বাচনে হারের দায় নিয়ে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর পদত্যাগের প্রস্তাব দল প্রত্যাখ্যান করলেও রাহুল গান্ধী এ সিদ্ধান্তে অটল রয়েছেন। তিনি দলকে নতুন নেতা খোঁজার নির্দেশ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে কোনো সুরাহা এখন পর্যন্ত হয়নি। কে হচ্ছেন দলের নেতা, কে চালাবে আগামী দিনের কংগ্রেস। সবমিলিয়ে হতাশাই কাজ করছে এই দলটিতে।

রাহুলের পদত্যাগের ঘোষণার পর দলের নেতা-নেত্রীরা ফোনে বা দেখা করে বোঝানোর চেষ্টা করেও কোনো লাভ হয়নি। রাহুল আর কোনোভাবেই কংগ্রেস সভাপতির পদে থাকতে রাজি হননি।

ভারতের গণমাধ্যম জানিয়েছে, কংগ্রেসের নবনির্বাচিত সাংসদরা রাহুলের সঙ্গে দেখা করার আর্জি নিয়ে ফোন করলেও তিনি কারো সঙ্গেই দেখা করতে রাজি হননি। তার সমস্ত অ্যাপয়েন্টমেন্ট, বৈঠক এবং রাজনৈতিক কর্মসূচি সব কিছুই বাতিল করেছে দল। সেটিও হয়েছে রাহুলের নির্দেশেই।

ফলে রাহুল এখন পদত্যাগ করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ নিয়ে আর কোনো দ্বিমতও নেই। কেবল নতুন কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচন করা পর্যন্ত দায়িত্বভার সামলাবেন রাহুল। তবে এ সময়ের মধ্যেও দলের সাংগঠনিক বা অন্য কোনো বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করবেন না।

কংগ্রেসের দুই বর্ষীয়ান নেতা আহমেদ পটেল এবং কে সি বেণু গোপালের সঙ্গে বৈঠক করে রাহুল তার পদত্যাগের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে নতুন নেতা খোঁজার জন্যও এ দুই নেতাকে স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন তিনি।

এর আগে নির্বাচনে বড় ধরনের বিপর্যয়ের পর গত শনিবার দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকেই পদত্যাগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন রাহুল। কিন্তু কমিটি তার পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেনি। বরং দলের দুঃসময়ে রাহুলকেই দলের হাল ধরে রাখতে বলেন নেতা-কর্মীরা। এমনকি রাহুলের পদত্যাগের সিদ্ধান্তে মত ছিল না তার মা সোনিয়া গান্ধী এবং বোন প্রিয়াঙ্কারও।

তখনকার মতো বিষয়টি মিটে গেলেও পরে ফের কঠোর অবস্থান জানান দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। সোনিয়া-প্রিয়াঙ্কা আবারও বোঝানোর চেষ্টা করেও রাজি করাতে পারেননি এবং তারাও শেষ পর্যন্ত রাহুলের সিদ্ধান্তেই মত দিয়েছেন।

রাহুলের ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর,পদ ছাড়ার ব্যাপারে আর কোনও দ্বিমতই নেই। তিনি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। শুধু নতুন কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচন করা পর্যন্ত দায়িত্বভার সামলাবেন তিনি। সেই সময়টুকু দলকে দিতে সম্মত হয়েছেন। তবে এই সময়ের মধ্যেও দলের সাংগঠনিক বা অন্য কোনও বড় সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে তিনি অগ্রণী ভূমিকা নেবেন না বলেই সূ্ত্রের খবর।

রাহুলের এই অনমনীয় অবস্থান বুঝেই তলে তলে পরবর্তী পদক্ষেপও শুরু হয়ে গিয়েছে বলে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। পরবর্তী কংগ্রেস সভাপতি কে হবেন, তা নিয়েও দলের ভেতরে শুরু হয়েছে জল্পনা-কল্পনা। রাজনৈতিক মহলে জল্পনা, সিডব্লিউসির পরবর্তী বৈঠকেই আনুষ্ঠানিকভাবে রাহুলের পদত্যাগের কথা ঘোষণা করা হতে পারে।

রাহুলের এ অনড় অবস্থান বুঝে পরবর্তী পদক্ষেপ শুরু করেছে দল। তার বিকল্পের সন্ধান শুরু করেছে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি। পরবর্তী কংগ্রেস সভাপতি কে হবেন, তা নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে। কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির পরবর্তী বৈঠকেই আনুষ্ঠানিকভাবে রাহুলের পদত্যাগ ঘোষণা করা হতে পারে বলে জল্পনা চলছে রাজনৈতিক মহলে।

অন্যদিকে শনিবারের কার্যকরী বৈঠকে ইস্তফার ঘোষণার পর এই প্রথম টুইট করেছেন রাহুল গান্ধী। সোমবার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর মৃত্যু দিবসে শান্তিবনে গিয়ে তাঁর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান রাহুল। সাথে ছিলেন সোনিয়া গান্ধীও।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

শিরোনাম