ঢাকা, শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

এমপির উপস্থিতিতে উপজেলা ও ইউপি চেয়ারম্যানের হাতাহাতি

রাজশাহী প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২২:৫৪ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রাজশাহীর পবা উপজেলা পরিষদে স্থানীয় সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে উপজেলা ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলা পরিষদের দ্বিতীয় তলায় ভাইস-চেয়ারম্যানদের কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। 

জানা যায়, উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় কারণে স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনসহ চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।এ সভায় শেষে খাবারের আগে আয়েনের সামনে দুই চেয়ারম্যানের এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রত্যক্ষদর্শী একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জানান,পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল বারী ভুলু স্থানীয় এমপি(রাজশাহী-৩) আয়েন উদ্দিনকে  গালি-গালাজ করেন এমন অভিযোগ নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ভুলু ঐ কক্ষ থেকে বের হতে গেলে উপজেলা চেয়ারম্যান মনসুর রহমান পিছন থেকে তাকে ধরে কিল-ঘুষি মারে।

 এসময় ভুলুও মনসুরকেও কিল-ঘুষি মারে। তাদের মধ্যে এই হাতাহাতির এক পর্যায়ে উপস্থিত অন্যরা তাদের নিবৃত্ত করেন। 
পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সাইফুল বারী ভুলু গেল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ার স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনের সঙ্গে তার দুরত্ব সৃষ্টি হয়।

জানতে চাইলে পারিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুল বারী ভুলু বলেন,‘আমি পাশের রুমে বসে অন্য চেয়ারম্যানদের সঙ্গে গল্প করছিলাম। এসময় এমপি ডাকছে বলে একজন পিয়ন আমাকে ডেকে নিয়ে যায়। রুমে ঢুকার পর এমপি আয়েন উদ্দিনকে গালাগালি করি এমন মিথ্যা অভিযোগে আমাকে ধমকায়। আমি বিষয়টি অস্বীকার করে রুম থেকে বের হওয়ার সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মনসুর পিছন থেকে আমার উপর হামলা ও মারধর শুরু করে।’

হাতাহাতির বিষয়টি অস্বীকার করে উপজেলা চেয়ারম্যান মনসুর বলেন,‘গালাগালি করা নিয়ে এমপি আয়েন উদ্দিন ও ইউপি চেয়ারম্যার সাইফুল বারী ভুলুর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।এ নিয়ে সেখানে উত্তেজনা সৃষ্ট হয়। এর বেশি কিছু ঘটেনি।’

জানতে চাইলে সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন বলেন,‘ইউপি চেয়ারম্যার ভুলুকে আমি ডেকে নিয়ে জিজ্ঞেস করি যে আপনার বয়স হয়েছে।আপনি আমাকে কেন গালাগালি করেন। তবে তিনি আমাকে গালাগালি করার কথা অস্বীকার করেন।এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আমাকেও গালাগালি করে ভুলু। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও উভয়ের মধ্যে উত্তেজনা হয়।’ তবে হাতাহাতির মত কোন ঘটনা সেখানে ঘটেনি বলে দাবি করেন এই সাংসদ।
এমএস/কেআই 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি