ঢাকা, শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

কাঁচা চামড়া কিনতে শুরু করেছেন ট্যানারি মালিকরা 

সাভার প্রতিনিধি: 

প্রকাশিত : ২০:০১ ১৯ আগস্ট ২০১৯ | আপডেট: ২২:০৭ ১৯ আগস্ট ২০১৯


অবশেষে সাভারের চামড়া শিল্পনগরীর মালিকদের কাছে কাঁচা চামড়া বিক্রি শুরু করেছেন আড়তদাররা। রোববার সচিবালয়ে সরকার, ট্যানারি মালিক ও আড়তদার ও কাঁচা চামড়া সংশ্লিষ্ট ব্যাবসায়ীদের ত্রিপক্ষীয় বৈঠকের পর সোমবার সকাল কাঁচা চামড়া ক্রয় শুরু হয়। 
আড়তদাররা জানান, সকাল থেকে সাভারের বিভিন্ন ট্যানারিতে ট্রাক বোঝাই কাঁচা চামড়া ঢুকতে শুরু করেছে। বকেয়া পাওনা ছাড়াই আড়তদাররা ট্যানারি মালিকদের কাছে চামড়া বিক্রি করেছে। আড়তদারদের পাওনা প্রায় চারশ কোটি টাকা কিভাবে পরিশোধ করবে ট্যানারি মালিকরা  তা আগামী ২২ আগষ্ট এফবিসিসিআই নির্ধারণ করবে। 
এদিকে কাঁচা চামড়া ট্যানারীতে প্রবেশ করায় এখানে কর্মরত শ্রমিকদের মধ্যে আশার সঞ্চার শুরু হয়েছে। 
চামড়া না আসলে ট্যানারি মালিকদের পাশাপাশি শ্রমিকরাও ক্ষতিগ্রস্ত হয় জানিয়ে ট্যানারি ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, সরকার, ট্যানারি মালিক ও আড়তদারদের মধ্যে সমঝোতার কারণে আবার সাভারের চামড়া শিল্পনগরী কর্মচাঞ্চল্যতা ফিরে আসায় আমরা অত্যন্ত সন্তুষ্ট। তবে দেশের দ্বিতিয় বৃহত্তম রফতানি শিল্প হিসেবে ভবিষ্যতে যাতে চামড়া শিল্পে কোন অস্থিরতা সৃষ্টি না হয় এবং শিল্পটি যাতে সুষ্ঠ এবং সুন্দরভাবে চলে এজন্য চামড়া বোর্ড গঠন করার দাবি জানান তিনি। 
ট্যানারি শ্রমিক রফিকুল ইসলাম বলেন, চামড়া না আসলে মালিকদের চেয়ে শ্রমিকদের সমস্যা বেশি হয়। আমরা বেকার হয়ে যাই এবং পরিবার নিয়ে অনিশ্চয়তা মধ্যে পড়ি। তাই যত দ্রুত সম্ভব ট্যানারি মালিকদের সাথে আড়তদারদের মধ্যকার সমস্যাটির স্থায়ী সমাধান করার দাবি জানান। 
এ.এস লেদার কমপ্লেক্স এর মালিক আব্বাস উদ্দিন বলেন, সরকারি সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে আমরা কাঁচা চামড়া কিনতে শুরু করেছি। তবে গত বছরের ক্রয় করা চামড়া মজুদ থাকায় এবং বিদেশি বায়ার কমে যাওয়া সেগুলো বিক্রি করতে পারিনাই। এই মুহুর্তে নগদ টাকার অভাব থাকায় স্বল্প পরিসরে হলেও নগদ টাকায় চামরা কিনছি।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি