ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০, || চৈত্র ২৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ঝাড়খণ্ডে হারের পর মোদীকে একহাত নিলেন স্বস্তিকা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২২:৩৭ ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯

সর্বশেষ ঝাড়খন্ড নির্বাচনে হেরে গেছে মোদি। কলকাতা- ঝাড়খণ্ডের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে জিতেছে কংগ্রেস-জেএমএম-আরজেডি জোট। ৪১টি আসন জিতে সরকার গড়ার জন্য প্রস্তুত এখন এ জোট।

অন্যদিকে মোট ৮১টি আসনের মধ্যে ঝাড়খণ্ডে ২৫টি আসন পেয়েছে বিজেপি। ঝাড়খণ্ড নির্বাচনে পুনরায় ক্ষমতার আসার বিষয় আত্মবিশ্বাসী ছিল গেরুয়া বাহিনী। কিন্তু সে স্বপ্ন ভেঙে দিয়েছে ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। এনআরসি ও সিএএ নিয়ে সারা দেশ জুড়ে যখন প্রতিবাদ চলছে, তার মধ্যে বিজেপির এই হারকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন অনেকেই। 

নেটিজেনরা বিভিন্ন মতামত দিচ্ছেন এই নির্বাচনকে কেন্দ্কে করে। অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ও এই নির্বাচনের ফল বেরোতেই মোদী সরকারকে সোশ্যাল মিডিয়ায় একহাত নিলেন।

স্বস্তিকা ফেসবুকে একটি টুইট করেন, “আর বলুন, জঙ্গলে যে ভাইবোনেরা থাকেন!! জঙ্গলবাসীরা তো মঙ্গল করে দিল। #JharkhandResults #JharkhandSaysNoToModi”

স্বস্তিকার এই অকপট ফেসবুক পোস্ট মুহূর্তে ভাইরাল হয়। স্বস্তিকা-ভক্ত তথা মোদী-বিরোধী নেটিজেনরা এমন সাহসি অকপট মন্তব্যের জন্য অভিনেত্রীকে অভিবাদন জানান। তবে এই পোস্টের কমেন্টে নিন্দুকরাও আক্রমণ করে অভিনেত্রীকে।

কেউ লেখেন, “বাংলার জঙ্গল কবে পরিষ্কার হবে, সেই আশা রয়েছি।” আর একজন লিখেছেন, “গোটা দেশ বিজেপিকে নিয়ে এসেছিল। তখন ইভিএম জালিয়াতির প্রশ্ন উঠেছিল। আবার এখন হঠাৎ ইভিএম ঠিক হয়ে গেল!” আবার কেউ লেখেন, “পরবর্তী বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী হিসেবে আপনাকে দেখা যাবে বোধহয়।”

স্বস্তিকা নিজের মতামত বরাবরই স্পষ্ট করে বলে এসেছেন। শুধু গেরুয়া বাহিনী নয়। যে কোনও রাজনৈতিক রংকে বিভিন্ন সময়ে সমালোচনা করেছেন। শুধু রাজনীতি নয়। বিভিন্ন সামাজিক স্টিরিওটাইপের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন তিনি। 

নেটিজেনদের অশ্লীল মন্তব্যের কড়া জবাব দিতেও পিছপা হননি তিনি। তুলোধনা করেছেন স্বস্তিকা। ঝাড়খণ্ড নির্বাচন নিয়ে এই পোস্ট করে বুঝিয়ে দিলেন, তিনি রাজনীতির বিষয়েও যথেষ্ট সচেতন।

এসি
 

New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি