ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

পায়ে বেঁধে অভিনব পন্থায় ১৮টি মোবাইল পাচার, দম্পতি আটক

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২০:৩৩ ১৪ অক্টোবর ২০১৯

পায়ে বেঁধে মোবাইলসহ অন্যান্য মালামাল পাচারের অভিযোগে এক দম্পতিকে আটক করেছে বিজিবি। সোমবার দুপুরে বেনাপোলের আমড়াখালি বিজিবি চেকপোস্ট থেকে ঢাকাগামী একটি পরিবহণ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন- ঢাকার খিলক্ষেত থানার কুড়াঢল পূর্বপাড়া গ্রামের শহিদ মিয়ার ছেলে হেলেন মিয়া (৪৪) ও তার স্ত্রী সায়মা সুলতানা (৩৩)।

বিজিবি জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুইজন পাসপোর্টধারী যাত্রী ভারত থেকে বিপুল পরিমাণ মালামাল নিয়ে একটি পরিবহনে ঢাকা যাচ্ছে- এমন খবর পেয়ে আমড়াখালী চেকপোষ্টে কর্মরত হাবিলদার আশেক আলীর নেতৃতে বিজিবি সদস্যরা তল্লাশি চালায়। এ সময় হেলেন মিয়া ও তার স্ত্রী সায়মা সুলতানাকে বাস থেকে নামিয়ে এনে শরীরে তল্লাশি চালানো হয়। তল্লাশিতে সায়মা সুলতানার পায়ের সাথে বিশেষ ব্যবস্থায় বাধা ১৮টি ভারতীয় মোবাইল (রেডমি এবং রিয়ালমী স্মার্ট ফোন) উদ্ধার করা হয়। পরে তাদের ব্যাগ তল্লাশি করে ৬টি থ্রী পিস, ১৭টি শাড়ি, ২০টি শাল চাদর, ১৩টি ওড়নাসহ ৬ লাখ ৫৯ হাজার ৪শ’ ৫০ টাকার মালামাল পাওয়া যায়। 

যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল সেলিম রেজা জানান, আটক দুই জন তাদের শরীরের সাথে অভিনব পন্থায় ভারত হতে বাংলাদেশে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে চোরাচালানী মালামাল পাচার করছিল। মোবাইলগুলো নারীটির পায়ের সাথে বিশেষ ব্যবস্থায় বাধা ছিল এবং চার্জারসহ অন্যান্য মালামাল ব্যাগে, কসমেটিকস-এর প্যাকেটে এবং জুতার মধ্যে গোপনভাবে সংরক্ষিত ছিল। উদ্ধারকৃত মালামালসহ আটকদের বিরুদ্ধে বেনাপোল পোর্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।
 
তিনি আরও জানান, আটককৃত আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, ইতোপূর্বে ৬ থেকে ৮ বার একই পদ্ধতিতে অবৈধ মালামাল পাচার করেছেন। তারা মূলতঃ চোরাচালান ব্যবসার সাথে জড়িত। 

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি