ঢাকা, রবিবার   ২০ জুন ২০২১, || আষাঢ় ৫ ১৪২৮

বেনাপোলে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ১০৫ জন বাড়ি ফিরেছেন

বেনাপোল প্রতিনিধি 

প্রকাশিত : ২২:৫৫, ১৪ মে ২০২১

যশোরের বেনাপোলে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরত যাত্রীদের মধ্যে মুখে হাসি ফুটেছে। হোটেল গুলোতেও বিরাজ করছে উৎসব মুখর পরিবেশ। স্বজনদের নিতে বেনাপোল এসে পৌঁছান তাদের নিকট আত্মীয়রা। এক নাগাড়ে ১৪ দিনের হোটেলে অবস্থানের পর যেন কারাবন্দীর অভিজ্ঞতা নিয়ে ঘরে ফিরেছেন ১০৫ জন। 

মঙ্গলবার শেষ হয় তাদের ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন। ১৪ দিন আগে ভারত ফেরত ১২৪ জনকে বেনাপোলের ৬টি হোটেলে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তাদের মধ্য অসুস্থতাজনিত কারণে ১৯ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
 
শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ ইউসুফ আলী জানান, আগামী ১৪ দিন বিভিন্ন হোটেল ও শেল্টার হোমে থাকা প্রায় ২ হাজার ৬৬৩ জন পালা ক্রমে ঘরে ফিরবেন। মঙ্গলবার সকালে ঘরে ফেরাদের ফুল দিয়ে বিদায় জানান, শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর আলিফ রেজা। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের যাতায়াতে সহায়তা করা হচ্ছে। হোটেল পোর্ট ভিউতে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ঢাকার মোখলেছুর রহমান বাড়িতে সন্তানদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে পারবে এই আনন্দে কোয়ারেন্টাইনে থাকার কষ্ট ভুলে যাবেন বলে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। এদিকে বুধবারও নতুন করে দেশে ফিরেছেন আরো ৩ জন যাত্রী। তবে আগামী ১৬ মে পর্যন্ত কোলকাতা দূতাবাস থেকে কোন ছাড়পত্র দেয়া হবে না বলে দুতাবাসের গেটে নোটিশ টানিয়ে দেয় হয়েছে বলে জানান ভারত থেকে আসা পাসপোর্টযাত্রীরা।

এদিকে কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারত ফেরতরা ঈদের দিন পাবেন জেলা প্রশাসনের আথিতেয়তা। যশোরের বেনাপোলের ১৩টি হোটেলে ৩৯৭ জন, ও ঝিকরগাছার গাজীর দরগাহ মাদ্রাসায় ১৪০ জন রয়েছেন। এবারের ঈদ কাটবে পরিবার স্বজনছাড়া ভিন্ন পরিবেশে। হোটেল ও মাদ্রাসার কোয়ারেন্টিনে থাকা মুসলিম স¤প্রদায়ের ঈদের জামাত হবে সংশ্লিষ্ট হোটেলসহ মাদ্রাসার ছাদে। এছাড়া এদিন সকাল ও দুপুরে জেলা প্রশাসনের আথিতেয়তা উপভোগ করবেন তারা। 

দীর্ঘ এক মাস রমজানের রোজা শেষে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর শুক্রবার উদযাপিত হবে। এদেশের প্রচলিত নিয়ম ও প্রথা অনুসারে এই ঈদ সাধারণত পরিবারে সবাইকে নিয়ে আত্মীয়-স্বজন পাড়া পড়শির সাথে মিলে মিশে পালন করা হয়। সাধ্যমত দান করা, সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করাসহ নানা ব্যস্ততায় ও আনন্দে মুখোরিত হয় ঈদ। সেই ব্যস্ততা ও বাস্তবতা থেকে দূরে অবস্থান করে ভিন্ন মাত্রায় এবং ভিন্ন পরিবেশে ঈদ উদযাপন করতে হবে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ভারত ফেরত বাংলাদেশিদের। হোটেল কক্ষের একাকিত্ব ও ঈদ হয়তো তাদের ও তাদের স্বজনদের নতুন কোনো বার্তা দেবে।

যশোর জেলা প্রশাসনের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, যদিও কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারত ফেরত যাত্রীদেরকে নিজ খরচেই থাকা-খাওয়ার বিধান রয়েছে। তবে ঈদের দিন তাদেরকে যশোর জেলা প্রশাসনের অতিথি হিসেবেই সংশ্লিষ্ট হোটেলে সকালের নাস্তা ও দুপুরের খাবার, পরিবেশন করা হবে। 

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি সূত্রে জানা যায়, মহামারী করোনার কারণে এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এর পর বিশেষ ব্যবস্থায় ভারত থেকে বেনাপোল সীমান্ত হয়ে ফেরা বাংলাদেশিদের জন্যে বেনাপোল, ঝিকরগাছা গাজীর দরগাহ যশোরের হোটেলসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখার ব্যবস্থা হয়। দিন দিন ভারত ফেরত যাত্রীর সংখ্যা বাড়তে থাকায় পার্শ্ববর্তী মাগুরা, সাতক্ষীরা, খুলনা, নড়াইল ও ঝিনাইদহে জেলায় স্থানান্তর করা হয় অনেককে। এদের প্রত্যেককে নিজ খরচে হোটেলে থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে, যদিও জেলা প্রশাসন সংশ্লিষ্ট হোটেলকে ভাড়া ৫০ শতাংশ মওকুফ করার অনুরোধ করেছেন। ভারত ফেরত করোনা পজেটিভ যাত্রীদের যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালসহ কয়েকটি বেসরকারি হাসপাতালের স্থানান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে যাদের কোয়ারেন্টিন শেষ হয়েছে এবং করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে তারা জেলা প্রশাসনের প্রত্যয়নপত্র প্রাপ্তি সাপেক্ষে বাড়ি ফিরে যাওয়ার অনুমতি পাচ্ছেন। 
কেআই//


 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি