ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২১, || মাঘ ৫ ১৪২৭

বেড়িবাঁধের জন্য অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের চেক হস্তান্তর

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৯:৩১, ২৭ নভেম্বর ২০২০

বাগেরহাটের শরণখোলায় টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের জন্য অধিগ্রহণের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে চেক হস্তান্তর করছেন জেলা প্রশাসন। 

শুক্রবার(২৭ নভেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামের অধিগ্রহনকৃত জমির মালিকদের মাঝে এই চেক হস্তান্তর করেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ। 

এসময় বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. শাহিনুজ্জামান, শরণখোলা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রায়হান উদ্দিন শান্ত, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহীন, সাউথখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হকসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। এদিন সাউথখালী ইউনিয়নের ৬৭ জন ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিককে এক কোটি ৬৩ লক্ষ টাকার চেক বিতরণ করা হয়।

এদিকে বাড়িতে বসে অধিগ্রহণের টাকা পেয়ে খুশি ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকরা। চেকগ্রহণকারী মুক্তিযোদ্ধা বারিক হাওলাদার বলেন, আমি বাড়ি বসে ১৪ লক্ষ টাকার চেক গ্রহণ করেছি। কোন প্রকার ঘুষ ও দালাল ছাড়া জমি অধিগ্রহণের চেক পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত।

জমির মালিক রিজিয়া বেগম বলেন, বেড়িবাধের জন্য জমি অধিগ্রহণের টাকা ঠিকমত পাব কিনা এই নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলাম। কিন্তু কোন প্রকার তদবির ছাড়াই বাড়ি বসে এই টাকা পেয়ে আমরা খুবই উপকৃত হব।

ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদেরকে চেক হস্তান্তর শেষে পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৩/১ পোল্ডারের শরণখোলার বগী এলাকায়  নির্মাণাধীন বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদসহ অতিথিরা।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ বলেন, কোন এলাকায় উন্নয়ন কাজ করতে হলে জমি অধিগ্রহণের প্রয়োজন হয়। আর জমি অধিগ্রহণ হলে এক ধরণের দুষ্টচক্র দালালি করার জন্য সক্রিয় হয়ে ওঠে। আমরা ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদেরকে দালালি ও হয়রানির হাত থেকে বাঁচাতে জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণের টাকা বাড়ি বাড়িতে গিয়ে হস্তান্তর করছি। ভবিষ্যতেও বাগেরহাটের উন্নয়ন কাজের জন্য অধিগ্রহণ হওয়ার জমির মালিকদের ক্ষতিপূরণের চেক বাড়িতে গিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি।
কেআই//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি