ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০, || চৈত্র ২২ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

স্ত্রী চলে যাওয়ার দুঃখে কবিতা লিখলেন দুবাই শাসক

প্রকাশিত : ১৩:০৫ ৩০ জুন ২০১৯

স্ত্রী চলে যাওয়ার পর কবিতা লিখে রীতিমত সাড়া ফেলেছেন দুবাই’র শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম। সম্প্রতি তার ষষ্ঠ স্ত্রী প্রিন্সেস হায়া বিন্তে আল হুসেইন বিপুল পরিমানে অর্থ (প্রায় ৩৩২ কোটি টাকা) নিয়ে সটকে পড়েছেন। একই সঙ্গে শাসকের কাছে তালাকের নোটিশও পাঠিয়েছেন হায়া বিন্তে।

আর তাই কষ্টে, দু:খে কবিতায় স্ত্রীর কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি। ‘তুমি বাঁচো এবং মরো’ শিরোনামে একটি কবিতা লিখেছেন শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ। স্ত্রী হায়াকে বিশ্বাসঘাতক বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

কবিতার শুরুতে তিনি লিখেন, ‘কিছু ভুল বিশ্বাসঘাতকতার দৃষ্টান্ত হিসেবে পরিচিত, তুমি সীমা লঙ্ঘন এবং বিশ্বাসঘাতকতা করেছো।’

এছাড়া তিনি কবিতায় আরও লিখেন, ‘তুমি বেঈমান, তুমি মহামূল্যবান বিশ্বাসের সঙ্গে বেঈমানি করেছো।’

সেই সঙ্গে তিনি লিখেছেন, ‘তুমি এখন বেঁচে থাকো বা মরে যাও তাতে আমার যায় আসে না।’

জানা যায়, প্রিন্সেস হায়া বিন্তে আল হুসেইন বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৩৩২ কোটি টাকা ও তার সন্তান নিয়ে দুবাই’র শাসককে ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে জনসম্মুখে প্রিন্সেস হায়াকে আর দেখা যাচ্ছিলো না। এমনকি তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অ্যাকাউন্টগুলোও চালু নেই। যেখানে তিনি প্রতিনিয়ত দাতব্য কাজের ছবি পোস্ট করতেন। বলা হচ্ছে, তিনি তার কন্যা জালিয়া (১১) ও পুত্র জাভেদকে (৭) নিয়ে জার্মানিতে পালিয়ে গেছেন। সেখানে তিনি রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেছিলেন।

আরবের মিডিয়া জানিয়েছে, জার্মান কূটনৈতিক প্রিন্সেস হায়াকে দুবাই থেকে পালাতে সাহায্য করেছে। কেননা দেশ দুইটির মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের টানাপোড়ান চলছে।

এছাড়া খবরে আরও বলা হয়েছে, দুবাই’র শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম তার স্ত্রীকে ফেরত পেতে জার্মানিকে অনুরোধ করেছেন। কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি জার্মান কর্তৃপক্ষ।

ধারণা করা হচ্ছে, নতুন জীবন শুরু করতে ৩৩২ কোটি টাকা নিয়ে দুবাই’র শাসককে ছেড়ে পালিয়েছেন হায়া। এদিকে দুবাই’র শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাখতুম তার স্ত্রীর এমন কাজকে বিশ্বাসঘাতকতা বলে উল্লেখ করেছেন।

এমএস/

New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি