ঢাকা, সোমবার   ০৮ আগস্ট ২০২২

হাজারো মানুষের ‘ইচ্ছে পূরণ’ করে আলোচনায় সৌরভ ইমাম

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৬:০০, ৪ আগস্ট ২০২২

ইচ্ছে পূরণের বিশ পর্ব শেষ করেছেন এর উদ্যোক্তা সৌরভ ইমাম। সম্প্রতি বরিশালের এক শিশুকে দিনভর একটি থ্রি-স্টার হোটেলে রেখে শিশুটির ইচ্ছে পূরণ করে ২০ পর্বের মাইলফলক ছুঁয়েছেন ইচ্ছে পূরণের এই ফেরিওয়ালা। 

নতুন এই মাইলফলক স্পর্শ করায় সাংবাদিক সৌরভ ইমামকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট এবং আরেক সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। 

এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত হয়েছে সৌরভ ইমামের ইচ্ছে পূরণের গল্পগুলো।

মূলত সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষকে বিনোদিত করতেই শুরু হয় ইচ্ছে পূরণের যাত্রা। এই যাত্রা শুরুর পর সহস্রাধিক মানুষের ইচ্ছে পূরণ করা হয়েছে। শুরুতে পথ শিশু কিংবা পিছিয়ে পড়া মানুষকে নিয়ে কাজ করলেও ধীরে ধীরে নানা আঙ্গিকে ইচ্ছে পূরণের কাজ এগিয়ে নিতে থাকেন তিনি।

একদিকে অসংখ্য পথশিশু, অন্যদিকে ক্রিকেট লিজেন্ড মাশরাফি বিন মর্তুজা, অ্যাশেজ ব্যান্ডের জুনায়েদ ইভানসহ সুশীল সমাজের অনেকেই নিয়মিত যোগ দিচ্ছেন সৌরভ ইমামের ইচ্ছে পূরণের গল্পে।

২০ পর্ব শেষ হওয়ার পর নিজের নতুন লক্ষ্য সাজিয়েছেন সৌরভ। এরই মধ্যে ১০০০ পর্ব করার পরিকল্পনা করেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ইচ্ছে পূরণের এই কাজটা প্রায় দুই বছর আগে শুরু করেন সৌরভ ইমাম। এরই মধ্যে নানাভাবে মানুষের ইচ্ছে পূরণ করে দেশজুড়ে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন একটি বেসরকারি টেলিভিশনের এই সাংবাদিক ও উপস্থাপক।

এরইমধ্যে একটি ব্যান্ডদলসহ অনেকেই এমন কাজে উৎসাহিত হচ্ছেন বলে জানান সৌরভ। অনেকেই নানা আঙ্গিকে পিছিয়ে পড়া মানুষের ইচ্ছে পূরণ করছেন। 

ইচ্ছে পূরণ নিয়ে সাংবাদিক সৌরভ ইমাম জানান, পৃথিবীতে একবারের জন্য এসেছি। কিছু ভালো কাজ করে যেতে চাই। একটা দাগ দিয়ে যেতে চাই। সেইসঙ্গে ইচ্ছে পূরণ কার্যক্রমটা নিয়মিত করতে চান বলেও জানান তিনি। 

নিরন্তর মানবতার জন্য নানামুখি কাজে নিজেকে জড়িয়ে রাখতে চান সৌরভ ইমাম। আর ইচ্ছে পূরণের পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা ধরনের কন্টেন্ট তৈরীও অব্যাহত রাখতে চান তিনি। 

এনএস//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি