ঢাকা, সোমবার   ২৭ মে ২০২৪

স্বাধীনতার ৫৩ বছরেও কুড়িগ্রামে হয়নি বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল

আতাউর রহমান বিপ্লব, কুড়িগ্রাম থেকে

প্রকাশিত : ১৪:২৫, ২৫ মার্চ ২০২৩

সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী -মৃত্যুবার্ষিকী পালনের দিনগুলোতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানোর জন্য কুড়িগ্রামে নেই জাতির জনকের ম্যুরাল। 

দেশ স্বাধীন হওয়ার ৫২ বছর পার হলেও দেশের উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামে স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে গড়ে ওঠেনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নিজস্ব ম্যুরাল কিংবা ভাস্কর্য। যেখানে জেলার সর্বস্তরের মানুষজন শ্রদ্ধা জানাবে। 

জানা যায়, ৭ই মার্চ ঐতিহাসিক ভাষণ, ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও ১৫ই আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য প্রতিবছর কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের বিজয় স্তম্ভে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি হিসেবে জাতির জনকের অস্থায়ী ছবিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। 

পরে সেই ছবি ও পুস্পস্তবকগুলো দিনশেষে সেই স্থান থেকে সরিয়ে আয়োজন করা হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। 

বছরের পর বছর এভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের গুরুত্বপূর্ণ দুটি দিবস পালন করা হলেও প্রশাসনের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল বা ভাস্কর্য গড়ে ওঠা নিয়ে তেমন কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। দু’বছর আগেও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনের সময় এ বিষয়ে জেলার সংস্কৃতি কর্মীরা দাবি তুললেও পরবর্তীতে এ বিষয়টি আর আলোর মুখ দেখেনি। 

কুড়িগ্রাম জেলা শহরের ত্রিমোহনীতে জেলা পরিষদ চত্তরে, কুড়িগ্রাম সরকারি কলেজ মাঠে স্ব স্ব কর্তৃপক্ষ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল থাকলেও জেলায় কেন্দ্রীয়ভাবে নেই কোন নিজস্ব স্থাপনা। জেলার একক নিজস্ব কোন ম্যুরাল বা ভাস্কর্য না থাকার ফলে এ দিবসগুলোতে বিজয় স্তম্ভে অস্থায়ীভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে জেলা প্রশাসনসহ জেলার বিভিন্ন সরকারি দপ্তর,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সর্বসাধারণ এভাবেই শ্রদ্ধা জানায়।

কুড়িগ্রাম জেলার ঘাতক, দালাল নির্মুল কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী দুলাল বোস বলেন, “দেশ স্বাধীন হবার এতগুলো বছর পরেও জেলায় কেন্দ্রীয়ভাবে জাতির জনকের ম্যুরাল না থাকার বিষয়টি সত্যি কষ্টদায়ক। স্বাধীনতার মাসে প্রশাসন চাইলেই এ সমস্যাটির সমাধান করতে পারে।”

জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ রাশেদুজ্জামান বাবু বলেন, “বিষয়টি দুঃখজনক হলেও সত্যি কুড়িগ্রামে কেন্দ্রীয় বা জাতীয়ভাবে বঙ্গবন্ধুর ম্যূরাল বা ভাস্কর্য নাই। আমি এই বিষয়টি আগামী জেলা উন্নয়ন সভার মিটিংয়ে তুলে ধরবো। যাতে সবাই মিলে এক জায়গায় বাংলাদেশের স্থপতির প্রতি সম্মান জানাতে পারি।”

এ বিষয়ে কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল আরীফ বলেন, “এতদিন বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে জেলায় নিজস্ব ম্যুরাল কিংবা ভাস্কর্য তৈরির বিষয়টি নিয়ে কাজ করা হয়নি। বিষয়টি সত্যি দুঃখজনক। আমরা ডিসি অফিসের পুকুর সংলগ্ন আই লাভ কুড়িগ্রাম নামক স্থানে নিজস্ব ম্যূরাল বা ভাস্কর্য তৈরি করার উদ্যোগ নেবো। যা আগামী আগস্ট মাসের মধ্যে তৈরি করা সম্ভবপর হবে।”

এএইচ


Ekushey Television Ltd.





© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি