ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, || আশ্বিন ১২ ১৪২৮

বাগেরহাটে ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ, জেলেদের মাঝে চাল বিতরণ 

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২২:০২, ১৪ অক্টোবর ২০২০

ইলিশ আহরণ নিষেদ্ধের কারণে বেকার জেলেদের মাঝে বিনামূল্যে চাল বিতরণ শুরু হয়েছে। বুধবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে শরণখোলা উপজেলা পরিষদ চত্বরে পাঁচ শতাধিক জেলেদের মাঝে ২০ কেজি করে চাল বিতরণের মাধ্যেমে এই জেলেদের সরকারি সহায়তা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মা ইলিশ রক্ষায় ইলিশ আহরণ বন্ধ রাখার গুরুত্ব সম্পর্কে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ। এসময় বক্তব্য দেন, বাগেরহাট পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, বাগেরহাট জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মো. খালেদ কনক, শরণখোলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরদার মোস্তফা শাহিন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিনয় কুমার রায় প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ইলিশ মাছ বাংলাদেশের সম্পদ। ইলিশ রক্ষার দায়িত্ব আমাদের সবার। ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার ঘোষিত সময়ে ইলিশ আহরণ বন্ধ রাখা খুবই জরুরী। ইলিশ আহরণ বন্ধ থাকলে ইলিশ জেলেরা বেকার হয়ে পড়েন। তাই জেলেদেরকে স্বাভাবিক জীবন যাপনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে জেলার ১২ হাজার ইলিশ জেলেকে সরকারি সহায়তা প্রদান করা হবে। এই সময়ে কোন জেলের পরিবার যাতে খাবারের জন্য কষ্ট না পায় সে দিকও খেয়াল রাখার কথা ব্যক্ত করেন বক্তারা।

২২ দিন ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধের সময়ে বাগেরহাটের ১৫ হাজার ৬০৮ জন ইলিশ জেলের মধ্যে ১২ হাজার জেলেকে বিনামূল্যে ২০ কেজি করে চাল প্রদান করা হবে। এর আগে ৬৫ দিন বন্ধের সময় বাগেরহাটের ২৩ হাজার ৪২ জন জেলেকে সরকারি ভাবে চাল দেওয়া হয়েছিল। বাগেরহাট জেলায় ৩৯ হাজার ৭৩০ জন নিবন্ধিত এবং ১৩ হাজার ৫৪২ জন অনিবন্ধিত জেলে রয়েছেন।
কেআই//
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি