ঢাকা, শুক্রবার   ২১ জানুয়ারি ২০২২, || মাঘ ৭ ১৪২৮

বাগেরহাট আন্তঃজেলা চোর সিন্ডিকেটের ৯ সদস্য আটক

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৭:১৭, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯

বিভিন্ন চোরাই মালামালসহ বাগেরহাট আন্তঃজেলা চোর সিন্ডিকেটের ৯ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে বাগেরহাট জেলা সদর ও পাশ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের আটক করে বাগেরহাট সদর থানা পুলিশ। 

এসময় আটকদের কাছ থেকে ১৭টি চোরাই মোবাইল, একটি ইজিবাইক, একটি ভ্যান ও একটি বাইসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

আটকৃতরা হলেন, জেলার কচুয়া উপজেলার উত্তর মাধবকাঠি গ্রামের আ. মান্নান মাঝির ছেলে মো. সাহিদুল মাঝি (২৯), দক্ষিণ মাধবকাঠি গ্রামের হান্নান শেখের ছেলে নাইম হোসেন (২৪), বয়াসিংগা গ্রামের মাহতাব শেখের ছেলে মো. বাদল শেখ (২৪), বাগেরহাট সদর উপজেলার দেপাড়া গ্রামের মো. রাকিবুল ইসলাম বাবু (১৯), আতাইকাঠি গ্রামের মৃত সোহরাব মোল্লার ছেলে তুফান মোল্লা (২২), গোবরদিয়া এলাকার মালেক দাইয়ের ছেলে মনিরুল ইসলাম মানিক (২৮), চিতলমারী উপজেলার ব্রাক্ষ্মণগাতী গ্রামের আমজাদ শেখের ছেলে মো. জুয়েল সেখ (২৩), কলিগাতী গ্রামের আসলাম শেখের ছেলে মো. সুমান শেখ (২০) এবং শরণখোলা উপজেলার ধানসাগর গ্রামের লিটন হাওলাদারের ছেলে মাসুদ রানা ফোরকান (২৩)।

শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়। 

তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে জেলায় একটি চোর সিন্ডিকেট সক্রীয় ছিল। এরা জেলার বিভিন্ন এলাকা ও পার্শ্ববর্তী জেলাতেও চুরি করত। বাগেরহাট সদর থানার ওসি তদন্ত মো. পান্নু মিয়ার নেতৃত্বে একটি টিম অভিযান চালিয়ে এই সিন্ডিকেটের ৯ সদস্যকে আটক করে। 

আটকরা জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন জায়গায় চুরির কথা স্বীকার করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, এদের মধ্যে শুধু তুফান মোল্লা ৯৫টি চোরাই মুঠোফোন বিক্রি করেছে। এই সিন্ডিকেট সব মিলিয়ে দেড় হাজারের বেশি মুঠোফোন বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

পুলিশ সুপার আরও জানান, এই সিন্ডিকেটের প্রায় ২০ জন সদস্য রয়েছে। তাদের মধ্যে তিনজন জেল হাজতে আছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে এই ৯ জনকেও আদালতে সোপর্দ করা হবে। বাকিদের আটকের চেষ্টা চলছে।

এআই/এসি
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি