ঢাকা, বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২, || মাঘ ১২ ১৪২৮

বাগেরহাটে সাংবাদিক পরিবারকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুট

বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:৫৫, ৯ নভেম্বর ২০২০

বাগেরহাটের কচুয়ায় স্থানীয় সাংবাদিক শুভংকর দাস বাচ্চু (৩৮) ও তার পরিবারের পাঁচ সদস্যকে অজ্ঞান করে মালামাল লুট করে নিয়েছে দূর্বৃত্তরা। রোববার (৮ অক্টোবর) রাতে কচুয়া উপজেলার মষনি গ্রামে বাচ্চুর বসতবাড়িতেই এ ঘটনা ঘটে। 

পরে আজ সোমবার (৯ অক্টোবর) সকালে বাচ্চুসহ পরিবারের সকলকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে স্থানীয়রা।

অসুস্থরা হলেন- দৈনিক গ্রামের কাগজ পত্রিকার কচুয়া প্রতিনিধি শুভংকর দাস বাচ্চু, বাচ্চুর বাবা নিকুঞ্জ বিহারী দাস (৬৮), বাচ্চুর স্ত্রী প্রিয়াংকা রানী দাস (৩০), বাচ্চুর ছেলে ঋতজিৎ দাস (৮) এবং বাচ্চুর বোন সবিতা রানী দাস (২৮)। এদের মধ্যে এখনও কথা বলতে পারছেন না বাচ্চু নিজে, বাবা নিকুঞ্জ ও ছেলে ঋতজিৎ দাস।

বাচ্চুর স্ত্রী প্রিয়াংকা রানী দাস বলেন- রোববার (৮ অক্টোবর) রাত সাড়ে ১০টার দিকে খেয়ে আমরা ঘুমিয়ে পড়েছিলাম। রাত ২টার দিকে টের পাই কে যেন আমার নাকে মুখে হাত দিচ্ছে। আমি ছেলের বাবাকে ডেকে আলো জেলে দেখি ঘরের সকল দরজা খোলা। আমার শ্বশুর, ননদ, স্বামী ও সন্তান সবাই অজ্ঞান। আমি নিজেও শারীরিকভাবে অসুস্থবোধ করছিলাম, স্বাভাবিক চলাফেলা করতে পারছিলাম না। সকালে স্থানীয়রা আমাদের সকলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

বাচ্চুর বোন সবিতা রানী দাস বলেন- রাতের খাবার খাওয়ার পর আমাদের অতিরিক্ত ঘুম আসছিল। হয়তো কেউ খাবারের সাথে ঘুমের কোনও ঔষধ মিশিয়ে দিয়েছিল। গভীর রাতে আমাদের ঘর থেকে নগদ ৩৫ হাজার টাকাসহ আমার এবং আমার বৌদির প্রায় ৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে যায়।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন- সাংবাদিক পরিবারের সকল সদস্যকে অজ্ঞান করে মালামাল লুটের ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করতে পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি