ঢাকা, বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ক্রমেই বাড়ছে করোনাতঙ্ক 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা 

প্রকাশিত : ২১:৫৯, ২৬ মে ২০২১

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ক্রমেই আতঙ্ক বাড়াচ্ছে করোনাভাইরাস। করোনার ভারতীয় ধরন শনাক্তের কারণে এই পরিস্থিতি। পরিস্থিতি এমনই যে, ‘বিষেশ লকডাউন’ দিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জকে দেশ থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে চলছে এক সপ্তাহের লকডাউন। চাঁপাইনবাবগঞ্জবাসীকে ঘরবন্দি থাকতে হচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরেই করোনায় দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা বাড়ছে। ফলে মানুষের মনে ফের ফিরতে শুরু করেছে আতঙ্ক। 

প্রসঙ্গত, গত বছর বাংলাদেশের মতো চাঁপাইনবাবগঞ্জেও করোনার প্রকোপ শুরু হয়। বাড়তে থাকে করোনা সংক্রমণ। মারা যান বেশকিছু মানুষ। সেই আতঙ্কই যেন নতুন করে ফিরে আসছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। এবার সংক্রমের মাত্রা রেকর্ড ছাড়িয়েছে। গত বছরের চেয়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে  দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কয়েকগুন বেড়েছে। 

স্বাস্থ্যবিভাগের তথ্যমতে, চাঁপাইনবাবগঞ্জে সর্বশেষ শনাক্তের হার ৬২ শতাংশ, অর্থাৎ প্রতি একশোটি নমূনা পরীক্ষায় ৬২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হচ্ছে। দুইদিন আগেও শনাক্তের হার ছিলো ৫৫ শাতাংশ। মঙ্গলবার ২১২ জনের নমূনা পরীক্ষায় ১৩১ জন এবং বুধবার ৫৬ জনের নমূনা পরীক্ষায় ৩৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। লাগামহীন সংক্রমণ বৃদ্ধির জন্য নাগরিকদের একাংশর ঢিলেঢালা মনোভাবকেই দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। করোনার দ্বিতীয়  ঢেউয়ে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জের। করোনার সংক্রমণ রোধে এক সপ্তাহের বিশেষ লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।  

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিভিল সার্জন ডাঃ জাহিদ নজরুল চৌধুরী জানান, গত দুদিনে ১৬৪ জনের শরীরে করেনা শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার রাজশাহীর পিসিআর ল্যাবে ২১২ জনের নমূনা পরীক্ষায় ১৩১ জনের করোনা শনাক্ত হয়। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১০২ জন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরের, ২০ জন নাচোলের ও ৯ জন গোমস্তাপুর উপজেলার। বুধবার একই ল্যাবে ৫৬ জনের করোনা পরীক্ষায় ৩৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। সিভিল সার্জন আরও জানান, ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের কারণে নয় বরং স্থানীয় সংক্রমণেই এই ভয়াবহ অবস্থার জন্য দায়ী। এখন পর্যন্ত জেলায় ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া যায়নি। আমরা আশা করছি, ৭ দিনের কঠোর লকডাউন বাস্তবায়ন সম্ভব হলে সংক্রমণের হার কিছুটা কমে আসবে।

আরকে//


Ekushey Television Ltd.

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি