ঢাকা, শনিবার   ২২ জুন ২০২৪

ভালুকায় সিলিন্ডার বিষ্ফোরণে ৩ ভাইবোন পুড়ে ছাঁই

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৯:৩২, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২২

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলাস্থ হবিরবাড়ীর সিডষ্টোর বাজারের কাজী অফিস এলাকায় বসতবাড়িতে অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে সহোদর ৩ ভাইবোন নিহত হয়েছেন। রোববার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯টার দিকে গ্যাস সিলিন্ডার বিষ্ফোরণে মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটে।

নিহত সাদিয়া (৮), নাদিয়া  ৫) ও রায়হান (২) নেত্রকোনার কমলাকান্দার সুমনের (৩৫) তিন সন্তান। সুমন ও তার স্ত্রী ভালুকার হবিরবাড়ীর সিডষ্টোর বাজারের কাজি অফিস এলাকায় রুবেলের বাড়িতে ভাড়া থেকে পোশাক কারখানায় কাজ করতো বলে জানা যায়।

ফারার সার্ভিস ও স্থানীয়রা জানায়, ভালুকার হবিরবাড়ীর রুবেলের বাড়ির ভাড়াটিয়া মদিনা (৩০) প্রতিদিনের মতো কর্মস্থলে যাওয়ার পর সুমন তার ছেলে-মেয়েকে নিয়ে বাসায় থাকেন। পরে তিনি ছেলে-মেয়েদের ঘরে তালাবন্ধ করে বাইরে গেলে ঘরে থাকা রান্না করার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আশ-পাশের লোকজন টের পাওয়ার আগেই আগুনে সুমন মিয়ার ভাড়া ঘর থেকে পার্শ্ববর্তী ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। 

এতে ঘরে আটকা থাকা ওই ৩ শিশুর পোড়া দেহের গন্ধ পেয়ে পাশের বাড়ির লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা শুরু করে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট স্থানীয়দের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ২ ঘণ্টার চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পর ওই ৩ শিশুর পোড়া মৃতদেহ উদ্ধার করেন। খবর পেয়ে নিহত শিশুদের বাবা-মা বাসায় এসে শোকে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন।

খবর পেয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদ ধনু, ভালুকা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম পিন্টু ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সন্তানহারা বাবা-মার প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন। বাড়িটিকে ঘিরে শত-শত উৎসুক জনতার উপস্থিতি ও স্বজনদের কান্নায় বাতাস ভারী হয়ে উঠে।

শোকাহত এলাকাবাসী এই ঘটনা মেনে নিতে পারছেন না কোনোভাবেই। আগুন নির্বাপণে প্রাণপন চেষ্টা চালিয়েও ৩ শিশুর জীবন বাঁচাতে না পারার আক্ষেপ রয়েছে তাদের মাঝে।

তবে তাদের দাবি, ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি দুর্ঘটনা কবলিত স্থানে আসার সহজ রাস্তা না পাওয়ায় আগুন মুহূর্তেই আশেপাশের বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে এবং এতে পুড়ে অকালে চলে গেল ৩টি শিশুর তাজা প্রাণ।

এদিকে, ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীদের সহায়তায় ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ওই রাতেই নিহত ৩ শিশুর পুড়ে পাওয়া দেহাবশেষ উদ্ধার করে শোকাহত মা-বাবাসহ তাদের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনার কমলাকান্দায় পাঠানোর কথা হয় বলে জানিয়েছেন ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র ষ্টেশন অফিসার আল-মামুন। 

তিনি আরও জানান, আগুনে ৫টি ঘর পুড়ে দেড়লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। যাতায়াত ও পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা না থাকায় আগুন দ্রুত নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি।

এনএস//


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি