ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০২৪

ঠাকুরগাঁওয়ে জোৎন্সা বেগম হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি 

প্রকাশিত : ২১:১৪, ২৭ জুলাই ২০২২

ঠাকুরগাঁওয়ে জোৎন্সা বেগম হত্যা মামলার একমাত্র আসামি মাফিজুল ইসলাম (২৩)কে মৃত্যুদণ্ড এবং একই সাথে এক লাখ টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছে আদালত।

 বুধবার দুপুরে জেলা দায়রা জজ মামুনুর রশিদ এ দণ্ডাদেশ দেন।  

মৃত্যুদণ্ডাদেশ প্রাপ্ত আসামি মাফিজুল ইসলাম জেলার রাণীশংকৈল উপজেলার বলিদ্বারা গ্রামের মৃত রিয়াজ আলীর ছেলে। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১২ সালের ২ সেপ্টেম্বর  রাত অনুমান ৭টা ৪৫ মিনিটে রাণীশংকৈল উপজেলার বলিদ্বারা গ্রামে দুলাল হোসেনের বাড়ির আঙ্গিনায় তার স্ত্রী জোৎন্সা বেগম তার দুই সন্তানকে লেখাপড়া করাচ্ছিলেন। এসময় হঠাৎ আসামি মাফিজুল ইসলাম বাড়িতে প্রবেশ করে ছুড়ি দিয়ে এলোপাথারী আঘাত করে জোৎন্সাকে রক্তাক্ত জখম করে। এতে কিছুক্ষণের মধ্যে মারা যান তিনি।

এসময় দুলালের ছেলেমেয়ে ও তার চাচাচাচির চিৎকারে আসামি ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। 

দুই বছর আগে মাফিজুল ইসলাম জোরপূর্বক জোৎন্সা বেগমের সঙ্গে প্রেম ভালবাসার সম্পর্ক করার চেষ্টা করলে এলাকায় এই বিষয়ে  শালিশ বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে মাফিজুলকে ১৫ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করা হয়। পুনরায় প্রেম ভালবাসার চেষ্টা করলে তা প্রত্যাখান করায় ক্ষিপ্ত হয়ে জোৎন্সা বেগমকে র্মমান্তিকভাবে হত্যা করে সে।

এ ঘটনায় মাফিজুল ইসলামকে একমাত্র আসামি করে  রাণীশংকৈল থানায় মামলা করেন দুলাল হোসেন। পরে তৎকালীন রাণীশংকৈল থানার সাব ইন্সপেক্টর রেজাউল আলম মামলাটি তদন্ত করে  ২০১৩ সালের ৩১ মে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন। 

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শেখর কুমার এ রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা ও নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে এটি যুগান্তকারী রায়।

এএইচ


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি