ঢাকা, মঙ্গলবার   ২১ মে ২০২৪

চুয়াডাঙ্গায় হত্যা মামলায় ৫ আসামির যাবজ্জীবন

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ২৩:৫৪, ২৭ নভেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ০৯:০০, ২৮ নভেম্বর ২০১৯

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার কায়েতপাড়া গ্রামের জিয়াউর রহমান জিয়া (৪০) হত্যা মামলার রায়ে ৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. রবিউল ইসলাম আদালতে এ রায় দেন। রায় ঘোষণার পর কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আসামিদের জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। 

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-আলমডাঙ্গা উপজেলার কায়েতপাড়া গ্রামের মৃত দু:খী প্রামনিকের ছেলে আব্দার হোসেন (৪০), মৃত আনছার আলীর ছেলে ইউনুস আলী (৫০), মৃত আইজুদ্দীন মন্ডলের ছেলে মুনিয়ার মন্ডল (৪৫), আমজাদ জোয়ার্দ্দারের ছেলে কবির আলী (৩৫) ও একই গ্রামের মৃত জলিল মন্ডলের ছেলে সলক আলী (৪৮)। 

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৯ এপ্রিল রাতে কায়েতপাড়া গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে মৎস্য চাষী জিয়াউর রহমান জিয়াকে মাথায় ও বুকে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এঘটনায় নিহতের বড় ভাই আশাদুল মন্ডল বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জনকে আসামী করে আলমডাঙ্গা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মামলার তদন্তকালে পুলিশ জিয়াউর রহমান হত্যার মোটিভ উম্মোচন করতে সক্ষম হন। একই সাথে হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে কায়েতপাড়া গ্রামের আব্দার হোসেন, ইউনুস আলী, মনিয়ার মন্ডল, কবির হোসেন ও সলককে গ্রেফতার করে। এদের মধ্যে আসামী সলক আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেন। 

আলোচিত এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আলমডাঙ্গা থানার তৎকালীন পরিদর্শক এএইচ এম লুৎফুল কবির তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ৬ ফেব্রুয়ারী ৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চাজশীর্ট দাখিল করেন। 

বিজ্ঞ আদালত এ মামলায় মোট ২২ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১৯ জনের স্বাক্ষ্য পরীক্ষা নিরীক্ষা সম্পন্ন করেন। রায়ে আদালত অভিযুক্ত ৫ জনকে পেনাল কোডের ৩০২/৩৪ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে তাদের প্রত্যেককে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত করেন। আলোচিত এ মামলাটি রাষ্ট্র পক্ষে পরিচালনা করেন পাবলিক প্রসিকউিটির এ্যাড. বেলাল হোসেন ও আসামী পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী এ্যাড. সেলিম উদ্দীন খাঁন ও এ্যাড. আফজাল হোসেন। রায় ঘোষণার পর কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে আসামীদের জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়। 

কেআই/আরকে


Ekushey Television Ltd.





© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি