ঢাকা, সোমবার   ১০ মে ২০২১, || বৈশাখ ২৬ ১৪২৮

হত্যার হুমকিদাতাদের বিচারের দাবিতে কুবিতে সাংবাদিকদের অবস্থান

কুবি সংবাদদাতা

প্রকাশিত : ২০:২০, ২৫ জুলাই ২০১৯ | আপডেট: ২০:২১, ২৫ জুলাই ২০১৯

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি ও লাঞ্ছনাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ক্যাম্পাসে ২য় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)।

বৃহস্পতিবার ২য় দিনের মতো সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের পাদদেশে এ অবস্থান কর্মসূচী ও সমাবেশ পালন করেন সংবাদকর্মীরা। 

জানা যায়, গত ২০ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি তানভির সাবিক এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক সমকালের প্রতিনিধি আবু বকর রায়হানসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীরা ছাত্রলীগের এক সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহ করতে যান। এ সময় তাঁদেরকে শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শোয়েব হাসান হিমেল এবং সহ-সভাপতি মো. রাইহান ওরফে জিসান গুলি করে হত্যার হুমকি প্রদান করেন। তারা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে বলেন,  ‘বুলেট সাংবাদিক চিনে না, সাংবাদিক পাইলেই গুলি করে মারবো।’ 

এরপর বিচারের দাবিতে গত রোববার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে ২৪ ঘন্টা সময়সীমা বেঁধে দিয়ে একটি স্মারকলিপি দেয় সাংবাদিক সমিতি। সোমবার নিরাপত্তার কথা বলে সাংবাদিত সমিতির ৪৩ জন সংবাদকর্মী এক যোগে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।  

তবে ঘটনার ৬ দিন পরেও দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষ ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। তবে গতকাল বুধবার দোষীদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এ দিকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ যথাযথ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করে শাখা ছাত্রলীগের সকল ইতিবাচক সংবাদও বর্জন করেছে সাংবাদিক সমিতি। 

বুধবারের মতো বৃহস্পতিবারও অবস্থান কর্মসূচি ও সমাবেশ পালনের সময়ে বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত প্লাকার্ড প্রদর্শন করেন সাংবাদিকরা। দোষীদের শাস্তি প্রদান না হওয়া পর্যন্ত সাংবাদিক সমিতি কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে বলে জানান সাংবাদিক নেতারা। 

সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘অপরাধীদের বিচার না করায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বিচারহীন সংস্কৃতি চালু করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অতিস্বত্ত্বর হুমকিদাতাদের বিচারের আওতায় এনে ক্যাম্পাসে সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আহবান জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, এছাড়াও রাইহান ওরফে জিসান গত ১২ জুলাই বণিক বার্তার বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নাজমুল সবুজকে ‘মইরা গেলে কবরে গিয়া হইলেও দুইডা কোপ দিয়া আসমু’, ‘তোরে দেইখা নিমু’, ‘তোর সময় শেষ’, ‘সবুজরে লাল কইরা ফেলবো’সহ বিভিন্নভাবে হত্যার হুমকি দেন।

এমএস/এসি

 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি