ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, || ফাল্গুন ১৩ ১৪২৭

এবার চীনা আইসক্রিমে করোনা শনাক্ত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৬:০৩, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ | আপডেট: ১৭:১৫, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

করোনা যেন পিছু ছাড়ছে না চীনের। এবার চীনা আইসক্রিমে পাওয়া গেছে করোনা ভাইরাস। বেইজিং-সংলগ্ন তিয়ানজিনের ডাকিওডাও ফুড কোম্পানির কারখানা সিল করে দেওয়া হয়েছে। কোভিড পরীক্ষা করা হচ্ছে সংস্থার সব কর্মীর।

ওই সংস্থার তৈরি আইসক্রিমের তিনটি নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে, তিনটিতেই রয়েছে করোনা ভাইরাস।

তিয়ানজিন প্রদেশে ওই সংস্থাটির ৩৯০টি আইসক্রিম বিক্রি হয়েছে। মিউনিসিপ্যালিটি এলাকায় করোনা-সংক্রমিত ওই আইসক্রিম যারা কিনেছেন বা খেয়েছেন সেই সব ক্রেতাদেরকে আপাতত হোম কোয়ারেন্টিনে রাখার কথা ভাবা হচ্ছে।
  
আইসক্রিমে করোনা সংক্রমণের খবর আসার পর ওই সংস্থার ১৬শ’ কর্মীকে কোয়ারেন্টিনে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। যদিও তাদের মধ্যে ৭শ’ জনের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। বাকিদের রিপোর্টের রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করছে সংস্থাটি।

আইসক্রিম কারখানাটি অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। 

সংস্থাটি জানিয়েছে, একাধিক দেশ থেকে আমদানি করা কাঁচামাল ব্যবহার করে আইসক্রিম তৈরি করে তারা। নিউজিল্যান্ড থেকে আমদানি করা হয় মিল্ক পাউডার। অন্য আর একটি কাঁচামাল আনা হয় ইউক্রেন থেকে। এ থেকেই আইসক্রিমে করোনা ভাইরাস এসে থাকতে পারে বলে মনে করছে তারা।

প্রসঙ্গত, উহানে যখন করোনা ধরা পড়েছিল, তখন চীন দাবি করেছিল, বাইরে থেকে এসেছে এই ভাইরাস। আমদানি করা মাছ বা অন্য খাদ্যের মাধ্যমে করোনা আসে সে দেশে। এবারে আইসক্রিমে করোনা ধরা পড়ার পরেও চীনা সংস্থার গলায় একই সুর। 

বিশেষজ্ঞরা অবশ্য বলছেন, এতে চিন্তার কারণ নেই। কোনও আক্রান্ত ব্যক্তির থেকে এই ভাইরাস হয়তো ঢুকে পড়েছে আইসক্রিমে। এর আগেও খাবারে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছিল। প্যাকেটজাত দ্রব্যে এই ভাইরাসের উপস্থিতি পেয়েছেন বিজ্ঞানীরাও। সূত্র: জি নিউজ

এএইচ/এসএ/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি