ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১, || কার্তিক ৩ ১৪২৮

করোনা যুদ্ধে ভারতের পাশে আমেরিকা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১০:০০, ২৯ এপ্রিল ২০২১

করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় বেসামাল ভারত। অতিমারী মোকাবিলায় ভারতের এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতোই পাশে দাঁড়াল আমেরিকা।
 
সংবাদ সংস্থা ‘এএনআই’ সূত্রে খবর, বুধবার রাতে হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে ১০০ কোটিরও বেশি মূল্যের করোনার ত্রাণ সামগ্রী ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। করোনা মোকাবিলায় অতিদ্রুত সেই সমস্ত মেডিকেল সরঞ্জাম সরবরাহের জন্য বুধবার রাতে ট্র্যাভিস এয়ার ফোর্স বেস থেকে বিশ্বের বৃহত্তম সামরিক বিমানটি ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে।

এই বিষয়ে হোয়াইট হাউসের পক্ষে জানানো হয়েছে যে, আপৎকালীন ত্রাণ সরবরাহের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রথম বিমানটি ভারতের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। খুব শীঘ্রই সেটি ভারতের মাটিতে পৌঁছে যাবে। 
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো ওই বিমানটিতে রয়েছে- ১০০ কোটি টাকারও বেশি মেডিকেল সরঞ্জাম। করোনা মোকাবিলায় ওই বিমানে ভারতের জন্য পাঠানো হয়েছে ৪৪০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার, প্রাথমিকভাবে সংক্রমণ শনাক্ত করতে ৯,৬০,০০০ টি র‌্যাপিড ডায়াগনস্টিক টেস্ট এবং প্রথম সারির করোনা যোদ্ধাদের জন্য ১০ লাখ ‘এন৯৫’ মাস্ক।
 
প্রসঙ্গত, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়তে ভারতকে বন্ধুত্বের বার্তা দেন তিনি। মঙ্গলবার ফের এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘যা প্রয়োজন তার সবই পাঠাবে আমেরিকা। রেমডেসিভির ও অন্যান্য ড্রাগ যেগুলি এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়তে পারে সেগুলিও পাঠানো হবে। আমরা সেইসব মেকানিক্যাল জিনিসও পাঠাচ্ছি যেগুলো ভ্যাকসিন তৈরির জন্য প্রয়োজনীয়।’ কখন ভ্যাকসিন পাঠানো হবে তা নিয়েও মোদীর সঙ্গে আলোচনা করেছেন বাইডেন। 

তিনি বলেছেন, ‘এখন সমস্যা হচ্ছে, আমাদের নোভাভ্যাক্স এবং অন্যান্য সম্ভবত ভ্যাকসিনগুলি আসার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। আমার মনে হয় যে সব দেশের দরকার তাদের সঙ্গে আমরা ভ্যাকসিনগুলি শেয়ার করতে পারব। আমাদের প্রথম অবস্থায় ভারত আমাদের সাহায্য করেছিল।’

উল্লেখ্য, বেসামাল ভারতে প্রতিদিন ৩ লক্ষের বেশি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকার ৪০টি শীর্ষস্থানীয় কোম্পানির সিইও। তারা একত্রিত হয়ে করোনা বিপর্যয়ের সঙ্কটের মধ্যে ভারতকে সহযোগিতা করার জন্য এগিয়ে এসেছে। করোনা যুদ্ধে ভারতের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সৌহার্দ্য-র হাত বাড়িয়ে তারা একটি ভারত ভিত্তিক টাস্ক ফোর্স তৈরী করেছে। এর মাধ্যমে করোনা যুদ্ধে ভারতকে লড়াইয়ের জন্য তারা সহযোগিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই উদ্যোগকে এক কথায় ভারতের প্রতি মার্কিন সৌহার্দ্য বললেও অত্যুক্তি হবে না। 

ইউএস চেম্বার অফ কমার্স-এর ইন্দো -ইউএস বিজনেস কাউন্সিল, ইউএস-ইন্ডিয়া স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারশিপ ফোরাম এই সংক্রান্ত একটি বৈঠক করে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন বলে জানান ডিলয়েটের সিইও পুনিত রেনজেন।
সূত্র : কলকাতা২৪
এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি