ঢাকা, রবিবার   ১৯ মে ২০২৪

চলতি অর্থবছরে জিডিপি হবে ৮ শতাংশ: এডিবি

প্রকাশিত : ১৫:৫৪, ৩ এপ্রিল ২০১৯

চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশ হতে পারে বলে মনে করছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। প্রবৃদ্ধি বাড়ার ক্ষেত্রে শিল্পের প্রবৃদ্ধি মূলচালিকাশক্তি হিসেবে কাজ করবে বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

বুধবার রাজধানীর আগারগাঁও এডিবি’র ঢাকা কার্যালয়ে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট আউটলুক-২০১৯ প্রকাশ অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ।

এর আগে গত ১৯ মার্চ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছিলেন, চলতি অর্থবছর শেষে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ ছাড়াবে। আর এর প্রায় দুই সপ্তাহ পর এডিবি তার আউটলুক প্রকাশ করে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ শতাংশের কথা জানাল।

ব্যক্তি চাহিদা, ব্যক্তিখাতে ভোগের চাহিদা, বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ বাড়া, রফতানি আয় ও রেমিটেন্স প্রবাহে ইতিবাচক ধারা অব্যহত থাকা এবং অবকাঠামো খাতে সরকারের ধারাবাহিকভাবে চলা উন্নয়নে এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। একই সময়ে মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ৫ শতাংশের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে বলে জানানো হয়।

এডিবির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ব্যাংক আইন সংশোধন, ব্যাংকে বিশেষ নিরীক্ষা ও ঋণের ঝুঁকি ব্যবস্থাপনা গাইডলাইনে কিছুটা সফলতা এসেছে। উন্নতি ধরে রাখতে আগামীতে বিদ্যমান ব্যাংক আইনের কঠোর প্রয়োগ চেয়েছে এডিবি।

এ ছাড়া করপোরেট সুশাসন প্রতিষ্ঠা, ঋণের সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা যাচাই করা, সরকারি ব্যাংকে একীভূতকরণের মতো উদ্যোগ বাস্তবায়নের সুপারিশ করা হয়েছে এডিবির প্রতিবেদনে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা সত্ত্বেও বাংলাদেশ গত ১০ বছরে সরকারের ধারাবাহিক সাফল্যে ৭ শতাংশের ওপরে প্রবৃদ্ধি অর্জনে সমর্থ হয়েছে। এছাড়া ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

তবে দেশের উন্নয়ন ধরে রাখতে কিছু চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করেছেন এডিবি ঢাকা অফিসের সিনিয়র অর্থনীতিবিদ সন চ্যাং হং। বলেন, দেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ উন্নত করতে হবে। শিল্পের ভিত বাড়িয়ে রফতানি পণ্যে বৈচিত্র্য আনতে হবে। এ সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করলে বাংলাদেশের উন্নয়ন টেকসই হবে।

একে//


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted


© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি