ঢাকা, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২:৪৮:০১

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে কলা অনুষদের ‘খ’ ইউনিটের সম্মান ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরের মোট ৭০টি কেন্দ্রে  শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত  এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২ হাজার ৩৬৩টি আসনের জন্য ৩২ হাজার ৭৪৯ জন ভর্তিচ্ছু আবেদন করেছেন। বরাবরের মতো আজও ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে মোবাইল কোর্ট দায়িত্ব পালন করে। গত শুক্রবার ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। সোমবার ওই পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। ফলাফলে দেখা যায় ৮৭ দশমিক ২৫ শতাংশ পরীক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছেন। তার আগের বছর একই ইউনিটে ৫ দশমিক ৫২ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছিলেন। আজ বিকালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘খ’ ইউনিটের ভর্তি পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।   //আর//এআর
নাম্বার কাটার ধরণ ঠিক থাকলেও চারটি উত্তর নিয়ে বিতর্ক

অনুষ্ঠিত হলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ সম্মান শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা। কিন্তু পরীক্ষায় প্রদেয় প্রশ্নপত্র নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে বিতর্ক। শিক্ষার্থীরা জানায়, প্রশ্নপত্রে প্রতিটি প্রশ্নের বিপরীতে চারটি উত্তর রাখা হয়েছে। অথচ ইতোপূর্বে এই ইউনিটে প্রতিটি প্রশ্নের বিপরীতে পাঁচটি করে উত্তর রাখা হতো। আর প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কাটা হতো শূন্য দশমিক ২৪ নম্বর। অথচ এবার উত্তর সংখ্যা কমিয়ে আনা হলেও নাম্বার কাটার পদ্ধতি আগের মতোই রাখা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার নিয়ম অনুযায়ী প্রতিটি ভুলের জন্য শূন্য দশমিক ৩০ নাম্বার করে কাটা হয়। তারা প্রতিটি প্রশ্নের বিপরীতে চারটি করে উত্তর দিয়ে থাকে। উত্তর কমানো হলেও নাম্বার কাটার পদ্ধতি কেন আগের মতো? এমন প্রশ্নের জবাবে ‘গ’ ইউনিট ভর্তি পরীক্ষা কমিটির আহ্বায়ক ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, এটাতো পরীক্ষার আগেই হয়েছে নতুন কিছু না। আর আমরা শূন্য দশমিক ৩০ কাটবো না শূন্য দশমিক ২৪ কাটবো তাতে কী আসে যায়। আগের নিয়ম কিংবা অন্য ইউনিটের সঙ্গে তুলনা করার তো কোনো প্রয়োজন নেই। এটার তো কোনো ‘রুলস’নেই। আগে চারটা ছিল এবার পাঁচটা উত্তর, এটা কোনো সমস্যা না। এ দিকে প্রশ্নপত্রের কয়েক জায়গায় ছিল সমস্যা। অনেক ভর্তিচ্ছু দাবি করেছেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে তাদের দেয়া প্রশ্নপত্রের মধ্যে ম্যানেজমেন্ট অংশ ছিল না। পরে অবশ্য তা সংশোধন করে দেয়া হয়। মাহবুবুর রহমান নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, প্রশ্নপত্রে যদি উত্তর কমানো হয় তাহলে নেগেটিভ মার্কও অন্যান্য ইউনিটের মতো শূন্য দশমিক ৩০ করা উচিৎ ছিল। কারণ, আমি একটি প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিলাম অথচ অন্য একজন ভুল উত্তর দিয়েও তার সঙ্গে আমার পার্থক্য বেশি হচ্ছে না; যা কর্তৃপক্ষের আগেই ভাবা উচিৎ ছিল। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে অন্য চারটি ইউনিটের ভর্তি নির্দেশিকা দেয়া থাকলেও ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি নির্দেশিকা দেয়া হয়নি। আরকে/ডব্লিউএন

ভর্তিযুদ্ধ শুরু ঢাবিতে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে ব্যাবসায়ে শিক্ষা অনুষদভুক্ত ‘গ’ ইউনিটে সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টায় শুরু হওয়া এ ভর্তি পরীক্ষা চলে বেলা ১১টা পর্যন্ত। আর বিকালে অনুষ্ঠিত হবে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সি ইউনিটের পরীক্ষা। এদিন ঢাবির ভর্তি যুদ্ধে অংশ নিতে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে কেন্দ্রগুলোতে প্রবেশ করে ভর্তিচ্ছুরা। পরীক্ষার হলে মোবাইল ফোনসহ টেলিযোগাযোগ করা যায় এমন কোনো ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস/যন্ত্র সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এ ছাড়াও শিক্ষার্থীদের প্রবেশমুখে মেটাল ডিটেক্টর বসানো হয়েছে। ঢাবি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরে মোট ৫৩টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটসহ ক্যাম্পাসের বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো- বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ, নীলক্ষেত হাই স্কুল, আজিমপুর সরকারি গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং অগ্রণী স্কুল ও কলেজ। উল্লেখ্য, এই ইউনিটে ১ হাজার ২৫০টি আসনের বিপরীতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ২৯ হাজার ৩১১ জন শিক্ষার্থী। আর//এআর

এমবিবিএস ভর্তিতে দ্বিতীয়বারের পরীক্ষার্থীদের নম্বর কাটা যাবে

মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস ও ডেন্টালের বিডিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয়বার অংশ নেওয়া পরীক্ষার্থীদের মোট নম্বর থেকে ৫ কেটে মেধাতালিকা তৈরি করতে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত। ফলে এমবিবিএস-বিডিএসে ভর্তি ইচ্ছুক দ্বিতীয়বারের পরীক্ষার্থীদের প্রাপ্ত নম্বর থেকে ৫ নম্বর কেটে তালিকা তৈরি করা হবে। আজ চেম্বার আদালতের বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী হাইকোর্টের আদেশের ওপর এ স্থগিতাদেশ দেন। আগামী ৩ অক্টোবর এ বিষয়ে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির দিন নির্ধারণ করেন আদালত। এ আদেশের পর দ্বিতীয়বার পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের নম্বর কাটতে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

ঢাবির গ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)-এর ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী শুক্রবার থেকে। ‘গ’ ইউনিটের অধীনে বাণিজ্য অনুষদের বিভিন্ন বিভাগে সম্মান শ্রেণীর ১ম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষা আগামী শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত চলবে। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও ক্যাম্পাসের বাইরের মোট ৫৩টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউটসহ ক্যাম্পাসের বাইরের কেন্দ্রগুলো হলো বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল ও কলেজ, নীলক্ষেত হাই স্কুল, আজিমপুর সরকারি গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ এবং অগ্রণী স্কুল ও কলেজ। গ-ইউনিটের অধীনে মোট এক হাজার ২৫০টি আসনের বিপরীতে ২৯ হাজার ৯৫৪ জন ভর্তিচ্ছু ভর্তি পরীক্ষায় অংশ গস্খহণ করবেন। আর চারুকলা অনুষদভুক্ত ‘চ’ ইউনিটের অধীনে ১ম বর্ষ বিএফএ সম্মান শ্রেণীতে ভর্তি পরীক্ষা (সাধারণ জ্ঞান) আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তি পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা অনুষদসহ ক্যাম্পাসের মোট ১১টি কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে। চ-ইউনিটে ১৩৫টি আসনের জন্য ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর সংখ্যা ১৩ হাজার ৪৭৬জন। পরীক্ষার হলে মোবাইল ফোনসহ টেলিযোগাযোগ করা যায় এরূপ যেকোনো ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস/যন্ত্র সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরীক্ষা চলার সময় পরীক্ষা কেন্দ্রভূক্ত এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত দায়িত্ব পালন করবে। ভর্তি পরীক্ষার সিট-প্ল্যান বিশ্ববিদ্যালয়ের (admission.eis.du.ac.bd) ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে।

সিদ্দিকুরের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

পুলিশের ছোড়া টিয়ারশেলের আঘাতে দৃষ্টিশক্তি হারানো তিতুমীর কলেজের মেধাবী ছাত্র সিদ্দিকুর রহমানের হাতে অ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানিতে চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বুধবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ নিয়োগপত্র তুলে দেন। এ সময় মন্ত্রী বলেন, ‘সিদ্দিকুরকে একটা চাকরি দিতে পেরে আমাদের সবারই ভালো ভাগছে। দৃষ্টিশক্তি না থাকলেও সিদ্দিকুরের এ চাকরি করতে কোনো সমস্যা হবে না।’ নিয়োগপত্র অনুযায়ী সিদ্দিকুর অ্যাসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানিতে টেলিফোন অপারেটরের কাজ করবেন। প্রাথমিকভাবে তিনি ১৩ হাজার টাকা মূল বেতন ও অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন। এক বছর পর চাকরি স্থায়ী হলে তিনি ২৩ হাজার টাকা মূল বেতন ও অন্যান্য সুবিধাদি পাবেন। ডব্লিউএন

এমসিকিউ উঠিয়ে দেয়ার পক্ষে শিক্ষাসচিব

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় বহু নির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) উঠিয়ে দেওয়ার পক্ষে মত দিয়েছেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। সচিবালয়ে নবম-দশম শ্রেণির বিজ্ঞানের ছয়টি বইয়ের পরিমার্জিত সংস্করণ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে মঙ্গলবার সচিব এ মতামত জানান। তিনি বলেন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় এমসিকিউ পরিপূর্ণভাবে উঠিয়ে দেওয়া উচিত। তিনি বলেন, এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত তবে আগামীতে শিক্ষাবিদদের সঙ্গে এটি নিয়ে বসব। প্রসঙ্গত, এবার থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় এমসিকিউ অংশ থেকে ১০ নম্বর কমিয়ে তা সৃজনশীল অংশে যোগ করা হয়েছে। প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে পরীক্ষা শুরুর পর প্রথমেই নেওয়া হচ্ছে এমসিকিউ অংশের পরীক্ষা। সোহরাব হোসাইন বলেন, আমাদের কাজ নিয়ে সমালোচনা হয়, প্রশ্নপত্র নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়। কেউ কেউ এমনও মন্তব্য করেছেন মন্ত্রী, সচিব বা উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা টাকার বিনিময়ে প্রশ্ন আউট করেন। কিন্তু অবাক হলেও সত্য যে, বোর্ডের চেয়ারম্যানেরও প্রশ্নপত্র দেখার সুযোগ থাকে না। পরীক্ষার হলে তাৎক্ষণিকভাবে প্রশ্নপত্র ছাপিয়ে পরীক্ষা নেওয়া যায় কি না সে বিষয়ে ভাবা হচ্ছে। তবে এতেও শিক্ষাবিদদের সহযোগিতা নিতে হবে। এমসিকিউ প্রশ্ন তুলে দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক বিভিন্নভাবে পরীক্ষার সময় ওই কক্ষের সমস্ত ছাত্রছাত্রী যেন ত্রিশ মার্কস পেতে পারে, সেই ব্যবস্থা করে দেন। এটা অর্থের বিনিময়ে হচ্ছে বলে আমাদের কাছে রিপোর্ট আসছে। এমসিকিউতে অনেকগুলো ঘটনা ঘটেছে যে, সবগুলো সাবজেক্টে আশির উপরে পেয়েছে, কিন্তু এমমসিকিউতে গিয়ে সাত বা আট পেয়েছে। সেখানে ১০ পাওয়ার বাধ্যবাধকতা আছে। সচিব বলেন, রাজধানীর রাজউক কলেজে লিখিত ও এমসিকিউয়ের নম্বরে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে। সেখানকার ১০ জন ছাত্র ফেল করেছে, কারণ তারা এমসিকিউতে ৭-৮ পেয়েছে। অবশ্য শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করছে, সংশ্লিষ্ট শিক্ষক তাদের খাতা নিয়ে গেছে। তিনি বলেন, ঢাকা বোর্ডকে বিষয়টি তদন্ত করতে বলেছি। তারা কী ৩০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে, নাকি ১০ নম্বরের উত্তর দিয়ে ৮ পেয়েছে। তারা কম পাওয়ার মত ছাত্র না। মন্ত্রিসভায় উঠছে শিক্ষা আইন : সোহরাব হোসাইন বলেন, শিক্ষা আইনের খসড়া শিগগিরই মন্ত্রিসভায় তোলা হচ্ছে। এ আইনের অভাবে আমরা অনেক কিছু করতে পারি না, সেটি এ সপ্তাহে মন্ত্রিসভায় তোলার জন্য রেডি হয়ে গেছে। তবে কঠিন কিছু বিষয় আছে সেখানে, আপনাদের (শিক্ষাবিদ) সাহায্য লাগবে। আর/ডব্লিউএন

চবিতে অনলাইনে ভর্তির আবেদন শুরু

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক ভর্তির অনলাইন আবেদন পক্রিয়া শুরু হয়েছে। এবার স্নাতক প্রথম বর্ষে মোট চার হাজার ৯২৪টি আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার দুপুর দেড়টা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি ভবনে প্রথমবারের মতো অনলাইনে ভর্তির আবেদন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ‘এ’ ইউনিটের মাধ্যমে এক হাজার ৩৫৬ জন, ‘বি’ ইউনিটে এক হাজার ৫৫৪ জন, ‘সি’ ইউনিটে ৭৫২ এবং ‘ডি’ ইউনিটে এক হাজার ১৭০ জন শিক্ষার্থীকে ভর্তি করানো হবে। অনলাইন পক্রিয়ার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, প্রতি বছরই ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়া চলার সময় কিছু আসন বাড়ানো হয়। ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষেও আসন বৃদ্ধি করা হয়েছে। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের কষ্ট লাঘব ও আর্থিক সাশ্রয়ের বিষয়টি চিন্তা করেই ভর্তি কার্যক্রম অনলাইনে আনা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বেলা ২টা থেকে শুরু হওয়া অনলাইনে ভর্তির আবেদনপত্র পূরণ করা যাবে আগামী ৪ অক্টোবর রাত ১২টা পর্যন্ত। আর পরীক্ষার ফি জমা দেয়া যাবে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত। ভর্তির বিস্তারিত তথ্য http://admission.eis.cu.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে।   আর/টিকে

সাংবাদিকতা বিভাগে ফিরলেন আরেফিন সিদ্দিক

টানা আট বছর সাত মাস ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দায়িত্ব পালন শেষে নিজ বিভাগ গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতায় যোগ দিয়েছেন অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। রোববার বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে যোগদানপত্রে সই করেন তিনি। বিভাগীয় এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তিনি কলাভবনে পৌঁছানোর আগে সেখানে উপস্থিত ছিলেন তাঁর বিভাগের সহকর্মীরা। এ সময় তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান তারা। বিভাগের চেয়ারপারসনের কক্ষে তাকে স্বাগত জানান অন্য সহকর্মীরা। এরপর যোগদানপত্রে সই করলে তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। বিভাগীয় সূত্রে জানা যায়, এখন থেকে আরেফিন সিদ্দিক শিক্ষকতাসহ বিভাগের নিয়মিত কার্যক্রমে অংশ নেবেন। অবশ্য উপাচার্যের দায়িত্ব পালনকালেও তিনি ক্লাসরুম থেকে বিচ্ছিন্ন ছিলেন না। সম্মান প্রথম বর্ষের ‘যোগাযোগের ধারণা’ কোর্সটি তিনি নিয়মিত পড়াতেন। একাধিক মেয়াদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত শিক্ষকদের সংগঠন নীল দলের আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করা অধ্যাপক আরেফিন সিদ্দিককে ২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি। এরপর ২০১৩ সালের আগস্টে তিনি সিনেট সদস্যদের নির্বাচিত প্যানেলে আসলে সেই প্যানেল থেকে তাকে আবারও নিয়োগ দেওয়া হয়। এরপর চলতি বছর আগস্টের ২৩ তারিখে তিনি উপাচার্য হিসেবে চার বছরের মেয়াদ শেষ করেন। সম্প্রতি অধ্যাপক আখতারুজ্জামানকে ঢাবির ভিসির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।//এআর

সহকর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিট

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান জলির রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় অভিযোগপত্র দিয়েছে পুলিশ। এতে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ায় তাঁর সহকর্মী সহকারী অধ্যাপক আতিকুর রহমানকে একমাত্র আসামি করা হয়েছে।গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের আবাসিক ভবনে নিজ কক্ষের দরজা ভেঙে আকতার জাহানের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় আকতার জাহানের ছোট ভাই কামরুল হাসান বাদী হয়ে পরের দিন আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজশাহী নগরের মতিহার থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ব্রজগোপাল রোববার অভিযোগপত্র দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মৃত্যুর ঘটনাটি খুব গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করে পুলিশ। এতে শুধু আমি নই, নগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারও তদন্তের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আতিকুর রহমানকে অভিযুক্ত করে গত মাসে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে। মামলার তদন্তে আতিকুর রহমানের বিরুদ্ধে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। জলির মৃত্যুর পর গত বছরের ৪ নভেম্বর আতিকুর রহমানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তখন পুলিশ বলেছিল, এই আত্মহত্যার ঘটনায় তাঁর (আতিকুর) সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। আতিকুর রহমান চাইলেই আকতার জাহানকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করতে পারতেন। গত ৬ ডিসেম্বর উচ্চ আদালত থেকে জামিন পান আতিকুর।এদিকে জলির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে তাঁর সাবেক স্বামী এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানভীর আহমদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ ওঠে। //এআর

© ২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি