ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

আন্দোলন স্থগিত, কাল পরবর্তী সিদ্ধান্ত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২২:৩৫ ৮ অক্টোবর ২০১৯ | আপডেট: ২২:৫৩ ৮ অক্টোবর ২০১৯

আবরার হত্যার ঘটনায় বুয়েটে শিক্ষার্থীদের চালিয়ে আসা আন্দোলন আজকের মতো স্থগিত করা হয়েছে। কাল পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে।
 
শিক্ষার্থীরা মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে এ আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেয়। বুধবার সকাল ১০টায় পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনের মুখে শিক্ষার্থীরা ভিসির বাসভবনসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় তালিয়ে লাগিয়ে দেয়। পরে তারা সব তালা খুলে দেয়।  

এর আগে শিক্ষার্থীদের আল্টিমেটামের জেরে অবরুদ্ধ ভিসি সন্ধ্যা ৬টার দিকে বের হয়ে আসেন। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন। সাধারণ শিক্ষার্থীরা তাকে একের পর এক প্রশ্ন করতে থাকেন। ভিসি সাইফুল ইসলাম তাদের সকল দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেন। এবং আন্দোলনকারীদের সকল প্রশ্নে একমত পোষণ করেন।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সূত্র থেকে জানা যায়, আবরার হত্যায় কারা কারা জড়িত, বুয়েটের শেরেবাংলা হলের শিক্ষার্থী, সিসিটিভি ফুটেজ ও আটকদের জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে হত্যাকাণ্ডে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতদের নাম উঠে এসেছে। গ্রেফতারকৃতরাও হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা শিকার করেছেন।

সূত্র জানায়, আবরারকে জেরা ও পেটানোর সময় হলের ওই কক্ষে অমিত সাহা, মুজতাবা রাফিদ, ইফতি মোশাররফ ওরফে সকালসহ তৃতীয় বর্ষের আরও কয়েকজন শিক্ষার্থী ছিলেন। ওই কক্ষে এসে দ্বিতীয় দফায় ফাহাদকে পেটান বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক এবং মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক ও নেভাল আর্কিটেকচার অ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের একই বর্ষের মেফতাহুল ইসলাম জিয়নসহ কয়েকজন। তারা সবাই মেহেদী হাসান রাসেলের অনুসারী।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার সন্ধ্যার পর চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহত আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ্। এ ঘটনায় সর্বশেষ তিনজনসহ মোট ১৩জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি