ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২২ অক্টোবর ২০২০, || কার্তিক ৮ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

তারকালাপে লাক্স তারকা ফারিয়া

‘আমি ধোয়া তুলসি পাতা’

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৩৮ ২২ জানুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ১২:১৪ ২২ জানুয়ারি ২০১৮

কথা ছিলো ক্যারিয়ার সফলাতার গল্প শোনার। কারণ মিডিয়াতে যারা কাজ করেন তাদের নিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতুহল অনেক। তাই তারকাদের জীবন জীবিকা নিয়ে আলোচনাটাই মূখ্য হয়ে থাকে। কিন্তু আজকের আলোচনাটা একটু ভিন্ন। সম্প্রতি লাক্স তারকা ফারিয়া শাহরিনের সঙ্গে ফেসবুকে প্রকাশ্যে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছেন তারই কিছু সহকর্মী। কিন্তু সব কিছুর বাইরে মিডিয়ার অন্ধকার অধ্যায় নিয়ে চর্চ্চাটা খুব কমই দেখা যায়। বিশেষ করে তারকারা নিজেদের সেই অন্ধকার অধ্যায়কে গোপনই রাখেন ক্যারিয়ার সামাজের কথা চিন্তা করে।

সময় বদলেছে। সবাই সরব হয়ে উঠেছেন। হলিউড ও বলিউড অনেকটা পথ অতিক্রম করেছে এই বিষয়টি নিয়ে। যৌন হয়রানি নিয়ে তারকারা একের পর এক গোপন তথ্য ফাঁস করছেন। এতে করে অনেক অজানা তথ্য প্রকাশ্যে চলে আসছে। আমাদের মিডিয়া অঙ্গনেরও রয়েছে অন্ধকার অধ্যায়। সেখানে রয়েছে ভয়াবহ কিছু কঠিন বস্তবতা। এবার এমনই এক বস্তবতার কথা প্রকাশ করলেন লাক্স তারকা ফারিয়া। যদিও এটি নিয়ে তাকে অনেকের তোপের মুখে পড়তে হচ্ছে। তবে তিনি বিষয়টি নিয়ে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

মিডিয়ার অসৎ মানুষদের উপর ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং ভবিষৎ পরিকল্পনা সম্পর্কে জানাতে একুশে টিভি অনলাইনের মুখোমুখি হয়েছেন লাক্স তারকা ফারিয়া শাহরিন। তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন- সোহাগ আশরাফ

 

ইটিভি অনলাইন : কেমন আছেন?

ফারিয়া শাহরিন : অনেক ভালো আছি। আপনি কেমন আছেন?

ইটিভি অনলাইন : ভালো আছি। দেশে আর কতদিন থাকবেন?

ফারিয়া শাহরিন : কিছুদিন আছি।

ইটিভি অনলাইন : আপনিতো দেশের বাইরে থাকতেন। কিছুদিন হলো এসেছেন। কাজ নিয়ে তো ব্যস্ত থাকতে হয় নিশ্চয়। বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে?

ফারিয়া শাহরিন : আমি আসলে কাজ নিয়ে খুব একটা ব্যস্ত থাকি না। আমি মূলত মালয়শিয়াতে থাকি। ওখানে পড়া লেখা করছি। একটা রিপোর্ট তৈরির কারণেই মূলত দেশে আসা। একটা চ্যানেলে কাজ করছি। ওখানে তিন মাসের জন্য কাজ করব। এরপর রিপোর্টটা নিয়ে চলে যাবো। তবে এর ফাকে কিছু কিছু কাজ করছি। ওই চ্যানেলেরই একটি অনুষ্ঠানের হোস্টিং করছি। আমি একেবারেই হোস্টিং পারি না তবে তাদের অনুরোধে করলাম। আমি নভেম্বরের ১১ তারিখ দেশে এসেছে। কিছু কাজ ইতিমধ্যে করেছি। কথাও চলছে।

ইটিভি অনলাইন : একটা সময় ছিলো যখন আপনি দেশে নিয়মিত কাজ করেছেন। সেই কাজগুলো বেশ প্রশংসিতও হয়েছে। এখন বিদেশে থাকছেন। মিডিয়াকে কি মিস করেন?

ফারিয়া শাহরিন : আবশ্যই মিস করি। সেই সময়গুলো রঙিন ছিলো।

ইটিভি অনলাইন : প্রবাসে কিভাবে সময় কাটে?

ফারিয়া শাহরিন : একটু সময় পেলেই আমি পুরানো কাজগুলো ইউটিউবে দেখি। প্রবাসে থাকলেও আমি দেশের সঙ্গে যুক্ত থাকার চেষ্টা করি। যখনই কোন নাটক আসে আমি দেখি। বিশেষ করে ঈদ বা অন্যান্য দিবসে যে নাটকগুলো আসে সবই দেখার চেষ্টা করি। যে নাটকগুলো ভালো লাগে আমি যাদের চিনি বা পরিচয় আছে তাদের ম্যাসেজ পাঠাই। বলি যে- কাজটা অনেক ভালো লেগেছে। দূরে থাকলেও আমি কিন্তু যুক্ত আছি। তাছাড়া সোশ্যাল মিডিয়াতে আমি খুবই অ্যাকটিভ। আমার ফ্যান ও ফলোয়ারদের সঙ্গে সব সময় যুক্ত থাকার চেষ্টা করি।

ইটিভি অনলাইন : পড়ালেখা শেষে দেশে কি ফিরে আসবেন? তখন কি আবারও মিডিয়াতে নিয়মিত হবেন?

ফারিয়া শাহরিন : অবশ্যই দেশে ফিরে আসবো। সেই পরিকল্পনাই আছে। মিডিয়াতে কাজের বিষয়ে আমি কখনও ভাবি না।

ইটিভি অনলাইন : দীর্ঘ বিরোতির পর আবারও পূর্বের অবস্থান তৈরি করতে সমস্যা হবে না?

ফারিয়া শাহরিন : আসলে আমি কখনও অবস্থান নিয়ে ভাবি না। আমার মনে হয় এক একটা মানুষ এক একটা জায়গায় জন্য পারফেক্ট। যদি প্রযোজক বা পরিচালকরা মনে করেন ফারিয়া কাম ব্যাক করে ভালো করবে তবে কাজ করব। আমার দর্শকরা আমাকে দেখতে চায় বলেই আমি কাজটা করি। ফেসবুকে অনেক ফ্যানদের রিকোয়েস্ট দেখি। আমি মাঝে নাটক ছেড়ে দিয়েছিলাম। কিন্তু দর্শকদের ভালোবাসার টানেই ফিরে আসতে হয়েছে।

আমি আসলে মিডিয়াকে কখনও প্রফেশন হিসেবে দেখিনি। তবে আপনার যদি কোয়ালিটি থাকে। আপনার যদি বিশ্বাস থাকে যে আপনি পারবেন তবে সবই সম্ভব। ভবিষতে যদি ইচ্ছে হয় তবে কাজ করব। কিন্তু আমার পর্দার পেছনেও কাজ করার ইচ্ছে আছে। দেখি কি হয়। আমার মুড আবার খুব বেশি সুইং করে। এই মনে হলো এটা করি। আবার চেঞ্জ হয়ে যায়। তাই এখনও বলতে পারছি না যে এটাই করব। তবে দেখা যাক।

ইটিভি অনলাইন : বাংলাদেশে এক রকম পরিবেশ, মালয়শিয়াতে অন্যরকম। ওখানে ওই পরিবেশে মিলতে সমস্যা হয়েছে কি?

ফারিয়া শাহরিন : না, খুব একটা সমস্যা হয়নি। ওখানে অনেক বাঙালি আছে। যেখানেই যাই বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। আসলে মালয়শিয়াকে আমার কখনও মালয়শিয়া মনেই হয়নি। এতো বাঙালি যে মনে হয়েছে আমি বাংলাদেশেই আছি।

ইটিভি অনলাইন : আপনি তো চলচ্চিত্রেও কাজ করেছিলেন। ফিরে এসে বড় পর্দায় কাজ করার ইচ্ছে কি আছে?

ফারিয়া শাহরিন : একটা চলচ্চিত্রে কাজ করেছিলাম। এরপর আর করা হয়নি। ব্যাটে বলে মেলেনি। কোন একটা জটিলতার কারণে কাজটা করা হয়নি। তবে ইচ্ছে আছে। ভালো কাজ অবশ্যই সবাই করতে চায়। ভালো স্ক্রিপ্ট যদি পাই, ব্যাটে বলে যদি মিলে যায় হয়তো বা কাজ করব।

ইটিভি অনলাইন : বাংলাদেশের মিডিয়া নিয়ে আপনার মন্তব্য কি? আমাদের দেশে বাজেটের একটু সমস্যা আছে। কিন্তু তারপরও আমরা অনেক ভালো কাজ করছি। আপনি বিষয়টিকে কিভাবে দেখেন?

ফারিয়া শাহরিন : আমার মনে হয় এখন বাংলাদেশের কাজ অনেক অনেক উন্নত হয়েছে। আগে যারা মিডিয়াতে কাজ করতে আসতো তাদের অনেক কষ্ট করতে হতো। এখন অনেক চ্যানেল হয়েছে। কাজের ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতা এসেছে। সবাই ভালো কিছু করতে চায়। তাই নির্মাতারাও ভালো কিছু করার চেষ্টা করছে। তবে আর্টিস্ট পেমেন্ট নিয়ে একটু ঝামেলা আছে। অনেক সময় দেখা যায় কাজ করার পরেও অনেক দিন ডিরেক্টরকে নক করতে হয়। কাজ শেষে পেমেন্টটা খুব দ্রুত পাওয়া উচিৎ। কিন্তু অনেক সময় টাকা নিয়ে খুব পেইন পেতে হয়। এটা খুব খারাপ লাগে।

ইটিভি অনলাইন : সম্প্রতি মিডিয়াতে আপনাকে নিয়ে কিছু বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। এর সঠিক কারণটা আসলে কি?

ফারিয়া শাহরিন : কারণগুলো ইতিমধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। আমি আসলে স্পষ্ট কথা বলি। ভয়ের কিছু নেই। লুকানোর কিছু নেই। অনেকেই মিডিয়াতে হয়রানির শিকার হয়। কিন্তু ক্যারিয়ার এবং পরিবারের কথা চিন্তা করে মুখ খোলেন না। আমি চাই এটা না থাকুক। কাজের একটা সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হোক।

ইটিভি অনলাইন : তাহলে কি আমরা ধরে নিবো মিডিয়ার এই অন্ধকার অধ্যায় দেখে আপনার মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। আর সেই জন্যই আপনি মিডিয়া থেকে দূরে সরে গেছেন?

ফারিয়া শাহরিন : মিডিয়াকে আমি অনেক ভালোবাসি। তবে আগেও বলেছি অবশ্যই ক্ষোভ রয়েছে। পেমেন্ট নিয়ে ঝামেলা করে। আজে বাজে প্রস্তাব দেয়। কোন একটা স্বার্থের বিনিময়ে বাজে প্রস্তাব দেয়। এগুলো আমি পছন্দ করি না।

ইটিভি অনলাইন : সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে আপনারই অনেক সহকর্মীদের সঙ্গে তর্ক-বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে আপনার বক্তব্য কি?

ফারিয়া শাহরিন : তারা কেনো যে এমন করছে আমি জানি না। আমি কারও নাম উল্লেখ করে কোন মন্তব্য করিনি। আমি কাজ করতে গিয়ে যে সমস্যার সম্মুখিন হয়েছি তাই বলেছি। এগুলো সত্য কথা। এর জন্য বিব্রত হতে হয়। আমি শুধু চেয়েছি কাজের পরিবেশটা সুন্দর হোক। এটা নিয়ে এতো তর্ক কেনো থাকবে। যারা এসব করছেন তাদেরই সমস্যা আছে। তারা সেক্রিফাইস করতে জানে। আমি পারি না।

ইটিভি অনলাইন : ‘সেক্রিফাইস’ শব্দটি নিয়ে আপনার একটা ওপেন চ্যালেঞ্জ মিডিয়াতে প্রকাশ পেয়েছে। এ বিষয়ে কি মন্তব্য?

ফারিয়া শাহরিন : এই শব্দটি নিয়ে মিডিয়া পাড়ায় অনেকেই বিভিন্ন মন্তব্য ও পাল্টা মন্তব্য ছুড়ছেন। যিনি বিষয়টি নিয়ে বেশি বেশি কথা বলেছেন তার উদ্দেশ্যে বলবো- তিনি আমাকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, আমরা কেউই ধোয়া তুলসি পাতা না। এটা আমি একদম মানতে পারলাম না। আপনি ধোয়া তুলসি পাতা না, আপনি জানেন; মিডিয়ার বহু মানুষ জানে; এমনকি মিডিয়ার বাইরের মানুষও জানে যে, আপনি ধোয়া তুলসি পাতা না। কিন্তু ফারিয়াকে যদি ওই গণ্ডিতে মাপেন, তাহলে আমি আত্মবিশ্বাসের সাথে মিডিয়াতে স্টেটমেন্ট দিতে পারব, আমি ধোয়া তুলসি পাতা।

আপনাকে আমি ‘ওপেন চ্যালেঞ্জ’ করলাম, আপনি ‘প্রুফ’ করেন, আমি ধোয়া তুলসি পাতা না। হ্যাঁ, আমার একটা রিলেশন ছিল, যদিও প্রতিটি মানুষই সম্পর্কে জড়ায়। আমি এতো বছর মিডিয়াতে কাজ করেছি, কেউ আমাকে বাজে কথা বলতে পারবে না। হ্যাঁ, যদি প্রেম করা অন্যায় করা হয়ে থাকে, তাহলে প্রেম করে হয়তো আমি বড় অন্যায় করে ফেলেছি। যদি আপনি ওইভাবে কাউন্ট করেন ধোয়া তুলসি পাতা।

আমি আমার রিলেশনশিপের বাইরে গিয়ে ১০ বছরের মিডিয়া ক্যারিয়ারে এক ঘণ্টার জন্যও আমার ‘এথিকস’র বাইরে গিয়ে কারও সাথে কোনো খারাপ কাজ কিংবা কারও সাথে কোনো খারাপ চ্যাট, এক কথায় কোনো খারাপ কাজে ফারিয়া শাহরিন গত ১০/১১ বছরের মিডিয়া ক্যারিয়ারে জড়ায় নাই। এই বিষয়ে আমি খুবই আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি।’

ইটিভি অনলাইন : অনেক ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

ফারিয়া শাহরিন : আপনাকেও ধন্যবাদ। একুশে টেলিভিশনকেও অনেক ধন্যবাদ।

এসএ/


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি