ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ইরানবিরোধী মার্কিন নিষেধাজ্ঞা মানি না: পুতিন ও জিনপিং

প্রকাশিত : ০৯:৩৭ ৬ জুন ২০১৯ | আপডেট: ১০:১৪ ৬ জুন ২০১৯

ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার একতরফা নিষেধাজ্ঞার নিন্দা জানিয়েছেন রাশিয়া ও চীনের শীর্ষ নেতারা। বুধবার রাতে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোয় রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মধ্যে শীর্ষ বৈঠক শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে এ নিন্দা জানানো হয়। খবর পার্সডুডের।

এইসঙ্গে বিবৃতিতে সকল পক্ষকে ইরানের পরমাণু সমঝোতা মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়। চীন ও রাশিয়ার শীর্ষ নেতারা পরমাণু সমঝোতার প্রতি ইরান প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকায় সন্তোষ প্রকাশ করেন।

পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী এ দুই দেশের শীর্ষ নেতারা এ সমঝোতার প্রতি তাদের দেশগুলো অবিচল থাকবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন।

যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা বা আইএইএ তার সবগুলো প্রতিবেদনে পরমাণু সমঝোতার প্রতি ইরানের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকার কথা নিশ্চিত করায় মস্কো ও বেইজিং সন্তোষ প্রকাশ করছে। একইসঙ্গে বিবৃতিতে স্পষ্টভাবে ঘোষণা করা হয়, “চীন ও রাশিয়া ইরানের ওপর আমেরিকার আরোপিত একতরফা নিষেধাজ্ঞা মানে না।”

আইএইএ এখন পর্যন্ত ‌‌১৫টি প্রতিবেদনে একথার সত্যতা নিশ্চিত করেছে যে, ইরান ২০১৫ সালে পরমাণু সমঝোতা স্বাক্ষর করার পর থেকে এখন পর্যন্ত ওই সমঝোতার কাঠামোর আওতায় থেকে নিজের পরমাণু কর্মসূচি পরিচালনা করেছে।

কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এসব প্রতিবেদনের প্রতি ভ্রুক্ষেপ না করে গত বছরের মে মাসে পরমাণু সমঝোতা থেকে তার দেশকে বের করে নেন। এরপর নভেম্বর মাসে ইরানের বিরুদ্ধে একতরফা ও অবৈধ নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেন।

কিন্তু পরমাণু সমঝোতাই স্বাক্ষরকারী বাকি পক্ষগুলো অর্থাৎ চীন, রাশিয়া, জার্মানি, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন আমেরিকার এ পদক্ষেপের তীব্র বিরোধিতা করে পরমাণু সমঝোতায় অটল থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

এসব দেশ আমেরিকার ইরান বিরোধী বাগাড়ম্বরের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো সত্ত্বেও বাস্তবে ইরানের অর্থনৈতিক স্বার্থ রক্ষার লক্ষ্যে বাস্তবসম্মত কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

এমএইচ/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি