ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

গণধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা ছাগল: পলাতক ৮ অভিযুক্ত

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:৪৭ ২৯ জুলাই ২০১৮

সুন্দরী কোন নারী নয়, কোমলমতি কোন শিশু বা বৃদ্ধাও নয়। পুরো মানুষ জগতকে ছাড়িয়ে এবার পশুর সঙ্গে যা ঘটলো তা পুরো সভ্য সমাজকে হতবাক করে দিয়েছে। হ্যা পশু বলতে হিংস্র কোন প্রাণী নয়। নয় গরু, হরিণ বা ঘোড়ার মতো কোন কিছু। গণধর্ষণের মতো ঘৃণ্য কাজটি ঘটেছে এবার ছাগলের মতো অবলা প্রাণীর সঙ্গে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের মেয়াট জেলায়। ধর্ষণের বিভৎস অত্যাচারে প্রাণীটি শেষ পর্যন্ত মারা গেছে। আর ঘটনায় অভিযুক্ত ৮ ব্যক্তি পালিয়ে আছেন।

ছাগলটির মালিক আসলুর অভিযোগ, গত বুধবার নিজের পোষ্যকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না তিনি। তারপর রক্তাক্ত অবস্থায় ছাগলটিকে পাওয়া যায়। অভিযোগ, গণধর্ষণ করা হয়েছে পশুটিকে । তার জেরেই বৃহস্পতিবার মৃত্যু হয় তার। সেদিনই থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন আসলু। পুলিশকে দেওয়া জবানবন্দি অনুযায়ী, গত ২৫ জুলাই রাতে ঘটনাটি ঘটে।

নাগিনা থানার ইন-চার্জ রাজবীর সিং জানান, অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছে সাভাকর, হারুন, জাফর নামের তিন ব্যক্তি। বাকি পাঁচজনের এখনও পরিচয় জানা যায়নি। তবে ঘটনার পর থেকে প্রত্যেকেই পলাতক। তাদের খোঁজ চলছে বলে জানানো হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে শীঘ্রই মৃত ছাগলটির মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছে। জানা গিয়েছে, মৃত্যুর সময় ছাগলটি অন্তঃসত্ত্বা ছিল।

পশু সুরক্ষা সংস্থা পেটার তরফে এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা করা হয়। গণধর্ষণের পরও অভিযুক্তরা তার উপর শারীরিক অত্যাচার করা হয় বলে জানা গেছে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৪, ৩৭৭ ও ৪২৯ নম্বর ধারায় এবং পশু সুরক্ষা আইনের (১৯৬০) ১১ (১)(a) এবং (I) ধারায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়েছে। মানুষের বিকৃত মস্তিষ্ক এবং কুরুচিকর চিন্তাভাবনাই এমন নৃশংস কাজের কারণ বলে মনে করছেন মনোবিদরা।

সূত্র- সংবাদ প্রতিদিন

আরকে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি