ঢাকা, রবিবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ঢাবিতে শুরু হল তিনদিন ব্যাপী নন-ফিকশন বইমেলা

ঢাবি সংবাদদাতা

প্রকাশিত : ১৮:৫৫ ১২ নভেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৮:৫৫ ১২ নভেম্বর ২০১৯

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ প্রাঙ্গণে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী ৫ম নন-ফিকশন বইমেলা-২০১৯। শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যবসা ও নন-ফিকশন বইয়ের পরিচিতি বাড়ানো এবং এ ধরনের বই পড়তে আগ্রহী করে তোলার লক্ষ্যে যৌথভাবে এ মেলার আয়োজন করেছে বণিক বার্তা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান এ মেলার উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন, বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ ডিন অধ্যাপক ড. শিবলী রুবায়েতুল ইসলাম, ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজম্যান্টের (বিআইবিএম) মহাপরিচালক ড. আক্তারুজ্জামান, সোনালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধান, জনতা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুস ছালাম আজাদ, অগ্রণী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. শামস-উল ইসলাম, রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবায়েদ উল্লাহ আল মাসুদ, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ওয়াসেক মো. আলী, ইসলামী ব্যাংকের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু রেজা মো. ইয়াহিয়া, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ওয়াহিদুজ্জামান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য বাহালুল মজনু চুন্নু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের চেয়ারম্যান ও সহকারী প্রক্টর মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভুঁইয়া প্রমুখ। 

মেলা উদ্বোধন ঘোষণা করে ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, আমাদের দেশে ফিকশন বইমেলা আয়োজিত হয়। তবে বই হিসেবে নন-ফিকশনের আলাদা একটি আইডেন্টিটি রয়েছে। তাই পাঠকদের জন্য বিশেষ করে শিক্ষার্থীদের জন্য এই বইমেলা বেশ গুরুত্ববহ। 

তিনি বলেন, ‘প্রযুক্তির বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে গুগল একটি রেফারেন্স মাধ্যম হয়ে উঠছে। তবে একটি কথা মনে রাখতে হবে গুগলের বেশিরভাগ রেফারেন্স কিন্তু এই নন-ফিকশন বই। তাই গুগল থেকে তথ্য পাওয়ার পরও আমরা বিশেষজ্ঞদের কাছে নিশ্চিত হতে হয়, তথ্যটা ঠিক আছে কি না। তবে নন-ফিকশন বইয়ের ক্ষেত্রে তা প্রয়োজন হয় না। কারণ নন-ফিকশন বই-ই এক একটা রেফারেন্স।’ 
তিনি প্রতিবছর এই বইমেলা আয়োজনের জন্য বণিক বার্তা ও সংশ্লিষ্ঠ সকলকে ধন্যবাদ জানান। ভবিষ্যতেও এ মেলা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

স্বাগত বক্তব্যে বণিক বার্তা সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ বলেন, ‘পাঁচবছর আগে আমরা এ মেলা শুরু করেছিলাম। ধীরে ধীরে এ মেলা বেশ শক্ত একটি অবস্থান করে নিয়েছে। এজন্য আয়োজন সহযোগী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বিশেষ করে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ এবং সকল সহযোগী প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’ ভবিষ্যতে এই আয়োজনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন বণিক বার্তা সম্পাদক।

এবারের মেলায় দেশের প্রথম সারির খ্যাতনামা ২৬টি প্রকাশনা সংস্থা অংশ নিচ্ছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। মেলায় সব বইয়ের ওপর থাকছে ৩০ শতাংশ মূল্যছাড়। এ প্রয়াসের অন্যতম উদ্দেশ্য হলো শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যবসা ও নন-ফিকশন বইয়ের পরিচিতি বাড়ানো এবং এ ধরনের বই পড়ায় আগ্রহী করে তোলা।

মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলো হলো দি ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড (ইউপিএল), প্রথমা প্রকাশন, ডেইলি স্টার বুকস, বাতিঘর, শ্রাবণ প্রকাশনী, সংহতি প্রকাশনী, দিব্যপ্রকাশ, একাডেমিক প্রেস অ্যান্ড পাবলিশার্স লিমিটেড (এপিপিএল), জাগৃতি প্রকাশনী, মাওলা ব্রাদার্স, সাহিত্য প্রকাশ, অনুপম প্রকাশনী, অবসর প্রকাশনা সংস্থা, সময় প্রকাশন, অ্যাডর্ন পাবলিকেশন, আগামী প্রকাশনী, নালন্দা প্রকাশনী, অনন্যা, কথাপ্রকাশ, কাকলী প্রকাশনী, আলোঘর, ঐতিহ্য, এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশ, জাতীয় সাহিত্য প্রকাশ, এ এইচ ডেভেলপমেন্ট পাবলিশিং হাউজ ও বাংলা একাডেমি।

মেলায় নানা আয়োজন: যেকোনো প্রকাশনার স্টল থেকে ১০০ টাকা সমমূল্যের বই কেনার জন্য থাকছে একটি করে কুপন। বণিক বার্তার স্টলে মানি রিসিট দেখিয়ে কুপন সংগ্রহ করতে পারবেন ক্রেতারা। প্রতিটি কুপনের বিপরীতে থাকছে আকর্ষণীয় পুরস্কার। পুরস্কার হিসেবে থাকছে এয়ার টিকিট, ব্যাগপ্যাক ও মূল্যবান বইসহ আকর্ষণীয় উপহার। এছাড়া উপস্থিত দর্শনার্থীদের জন্য প্রতিদিন রাত ৮টায় র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হবে। বিজয়ীদের জন্য বণিক বার্তার পক্ষ থেকে থাকছে মূল্যবান বই, টিশার্ট, মগসহ আকর্ষণীয় পুরস্কার।

ফটো কনটেস্ট: তরুণ পাঠকদের জন্য এবারের মেলার আরেকটি আকর্ষণ হচ্ছে ফটো কনটেস্ট। মেলায় ছবি তুলে জিতে নিতে পারবেন ল্যাপটপ ও ঢাকা-কুয়ালালামপুর-ঢাকা এয়ার টিকিট। সর্বোচ্চ শেয়ারপ্রাপ্ত ছবি পোস্টকারী হবেন এ প্রতিযোগিতার বিজয়ী। এজন্য আগ্রহীদের ‘নন-ফিকশন বইমেলা ২০১৯’ ফেসবুক ইভেন্টে যুক্ত হয়ে ছবি পোস্ট করতে হবে। ছবির পোস্টে হ্যাশট্যাগ দিতে হবে বণিক বার্তা ও নন-ফিকশন বুক ফেয়ার ২০১৯। চেকইন-এ [Daily Bonik Barta (বণিক বার্তা)] দিতে হবে। বণিক বার্তার ফেসবুক পেজ ও ইভেন্ট পেজে এ কনটেস্টের ফলাফল জানিয়ে দেয়া হবে।

কেআই/এসি
 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি