ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯, || আশ্বিন ৩০ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

পোল্যান্ডকে মস্কোর ভর্ৎসনা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৮:২০ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

পোল্যান্ডের তীব্র সমালোচনা করেছে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নাৎসী বাহিনীকে পরাজিত করার ক্ষেত্রে সোভিয়েত রাশিয়ার ভূমিকাকে অবজ্ঞা করায় এ সমালোচনা করে মস্কো। খবর পার্সটুডে’র।

রোববার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষে পোল্যান্ডে অনুষ্ঠিত এক শীর্ষ সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এর প্রতিবাদে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মস্কোয় এক বিবৃতি প্রকাশ করে ওই সমালোচনা করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কোটি কোটি মানুষের রক্তপাত ও ভবিষ্যত প্রজন্মগুলোর ভাগ্য পরিবর্তনের ওই যুদ্ধ ছিল গোটা মানবজাতির জন্য এক বেদনাদায়ক ঘটনা। কিন্তু এই ঘটনার জন্য হিটলারের নেতৃত্বাধীন জার্মানি ও তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নকে সমানভাবে দায়ী করার প্রচেষ্টা বর্তমান রাশিয়ার ভাবমর্যাদাকে ক্ষুণ্ন করার উদ্দেশ্যে করা হচ্ছে বলে মস্কো মনে করছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ওই বিশ্বযুদ্ধ-পূর্ববর্তী জটিল পরিস্থিতি বিশ্বকে এই মহা বিপর্যয়ের দিকে নিয়ে গিয়েছিল এবং সেই জটিল বিশ্ব-পরিস্থিতির জন্য প্রকৃতপক্ষে কারা দায়ী ছিল সে সম্পর্কিত ঐতিহাসিক দলিল প্রকাশ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। 

গতকাল পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারশ’তে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে প্রায় ৪০টি ইউরোপীয় দেশের শীর্ষ নেতা ও কয়েকটি বিশ্ব সংস্থার প্রধানরা অংশগ্রহণ করেন। পোলিশ সরকার ওই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য রাশিয়ার কোনও কর্মকর্তাকে আমন্ত্রণ জানায়নি।

এর আগে রুশ প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র দিমিত্রি পেশকভ বলেছিলেন, রাশিয়ার উপস্থিতি ছাড়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর বার্ষিকীর যে কোনও অনুষ্ঠান হবে অর্থহীন। কারণ হিটলারের নাৎসীবাদী বাহিনীকে পরাজিত করার ক্ষেত্রে রুশদের অনেক বড় অবদান ছিল।

রাশিয়ার বার্তা সংস্থা স্পুৎনিক লিখেছে, নাৎসী বাহিনীর হাত থেকে শুধু পোল্যান্ডকে মুক্ত করতে গিয়ে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের  প্রায় ৬ লাখ সেনা প্রাণ হারিয়েছিল।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি