ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে ঢাকা কলেজে গ্রন্থপাঠ প্রতিযোগিতা

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৫২ ৫ আগস্ট ২০১৯

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ঢাকা কলেজের উদ্যোগে আন্তঃকলেজ গ্রন্থপাঠ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকালে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতিকে সচেতন ও জাগ্রত করেছিলেন, ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন এবং নেতৃত্ব দিয়ে দেশকে স্বাধীন করেছিলেন। সঠিক লক্ষ্যে পৌঁছাতে বঙ্গবন্ধু দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। তার সেই দিকনির্দেশনা ও আর্দশকে বুকে ধারণ করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে সাবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া এদেশ তার স্বপ্নের যায়গায় তোমাদের পৌঁছে দিতে হবে। তাই তাকে জানার কোন বিকল্প নেই। তাকে জেনে বুকে ধারণ করে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। বঙ্গবন্ধু কোন দলীয় বিষয় নয়। তিনি দলমত সব কিছুর উর্ধ্বে।

ঢাকা কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ও প্রতিযোগী রিফাত হাসান জানায়, বর্তমান প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজিবনী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ বইটি না পড়লে জাতির জনক সম্পর্কে অনেক কিছুই জানতে পারতাম না। তাছাড়া লিখিত পরীক্ষা নেওয়াতে আমাদের রাইটিং স্কিলের উন্নতি হয়েছে।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী সাইমা বিনতে জানান, এমন একটি প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত। এখানে পুরস্কার বড় কথা নয়, বইটি পড়ে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পেরেছি। আমি মনে করি সব শিক্ষার্থীর বইটি পড়া উচিত।

ঢাকা কলেজর অধ্যক্ষ প্রফেসর নেহাল আহমেদ বলেন, বর্তমান প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু সর্ম্পকে জানতে পারলে স্বাধীনতার চেতনা এবং মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে পারবে। ঢাকা কলেজ এ আয়োজন শুরু করেছে। এই ভিন্ন আয়োজন সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ুক এটাই প্রত্যাশা। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে তৃতীয়বারের মতো ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী  গ্রন্থ থেকে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। গত ২০১৭ ও ২০১৮ সালেও ঢাকা কলেজ এ ধরণের প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল।

অনুষ্ঠানে ঢাকা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর এটিএম মইনুল হোসেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক প্রফেসর ড. মো. আব্দুল কুদ্দুস শিকদার, যুগ্ম সম্পাদক প্রফেসর আকম রফিকুল আলম, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর মো. ওবায়দুল করিমসহ বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ ও শিক্ষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষ ও উপাধ্যক্ষগণ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, প্রতিযোগিতায় ঢাকা কলেজসহ ঢাকা মহানগরীর ২১টি কলেজের একাদশ শ্রেণির (২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষ) প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন। প্রতিযোগিতায় ১ম বিজয়ীকে দশ হাজার টাকা অথবা সমমূল্যের বই, ২য় বিজয়ীকে সাত হাজার টাকা অথবা সমমূল্যের বই, ৩য় বিজয়ীকে  পাঁচ  হাজার টাকা অথবা সমমূল্যের বই পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হবে। এছাড়াও নির্ধারিত ক্যাটাগরিতে ১৩টি বিশেষ পুরস্কারের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

এনএম

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি