ঢাকা, শুক্রবার   ১৮ জুন ২০২১, || আষাঢ় ৩ ১৪২৮

বাগাতিপাড়ায় ফের বৃদ্ধের রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

নাটোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত : ১৫:০৭, ১০ মে ২০২১

বৃদ্ধ দম্পত্তির রক্তাক্ত মৃহদেহ উদ্ধারের তিন দিনের ব্যবধানে নাটোরের বাগাতিপাড়ায় আবারও এক বৃদ্ধের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিজ বাড়ির শয়নকক্ষে মেহের আলী ওরফে মোহর মোল্লার (৬০) রক্তামাখা মৃতদেহ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় তদন্তে নেমেছে পিবিআই ও বাগাতিপাড়া থানা পুলিশ।

রোববার (৯ মে) রাতে উপজেলার দয়ারামপুর ইউনিয়নের সোনাপুর হিজলী দীঘাপাড়া থেকে বৃদ্ধের রক্তামাখা মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।  মৃত মেহের আলী ওরফে মোহর মোল্লা ওই গ্রামের মৃত ইয়াদ মোল্লার ছেলে।
 
পুলিশ, স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, পুত্র আসকান মোল্লার সাথে মত বিরোধ থাকার কারণে বৃদ্ধ মেহের আলী তার বাড়িতে একাই থাকতেন। রোববার সকল সাড়ে ৯টার দিকে তার পুত্রবধূর সাথে কথা বলেন তিনি। পুত্রবধূকে বিদায় দিয়ে নিজ ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়েন মেহের।

মেহেরের মেয়ে মমতাজ জানান, দিন গড়িয়ে বিকেল হওয়ার পর তার বাবার কোন সাড়া পাচ্ছিলেন না। অনেক ডাকাডাকি করে তার কোনো সাড়া না পাওয়ায় এলাকাবাসী টিনের বেড়া কেটে ঘরে ঢুকে রক্তাক্ত অবস্থায় বাবাকে বিছানার ওপর পড়ে থাকতে দেখে। পরে ঘটনাটি পুলিশে জানালে তারা লাশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়। 

বাগাতিপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, স্থানীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে সঙ্গীয় ফোর্সসহ রোববার রাত ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে যাওয়া হয়। সেখানে  গিয়ে নিজ ঘরের বিছানার ওপর মেহের আলী ওরফে মোহর মোল্লার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। 

সুরতহাল রিপোর্ট তৈরিসহ এলাকাবাসীদের কয়েকজনের বক্তব্য নিয়ে রাত ১টার দিকে মরদেহ থানায় নিয়ে আসা হয়। সোমবার সকালে ওই বৃদ্ধের লাশ ময়না তদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। 

স্ত্রী না থাকা ও পারিবারিক নানা বিষয়ে ছেলে আসকান মোল্লার সাথে বিরোধের কারণে তিনি ওই বাড়িতে একাই থাকতেন। ঘটনাটি গুরুত্বের সাথে তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান ওসি নাজমুল।
 
উল্লেখ্য, গত ৭ মে একই উপজেলার জামনগর পশ্চিমপাড়ার নিজ বাড়ি থেকে এক বৃদ্ধ দম্পতির রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনার রহস্য এখনো উদঘাটন হয়নি।
এএইচ/এসএ/
 


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি