ঢাকা, মঙ্গলবার   ২০ আগস্ট ২০১৯, || ভাদ্র ৫ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বাজেটে কোনো বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হবে না: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২৩:৩৪ ২৫ মে ২০১৯

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, কথা দিচ্ছি বাজেটের পর পণ্যের দাম বাড়বে না। বাজেটে কারো ওপর কোনো বোঝা চাপিয়ে দেওয়া হবে না। কাউকে কোনো কষ্ট দিয়ে কাজ করবো না। শনিবার রাজধানীর বসুন্ধরায় দৈনিক কালের কণ্ঠ আয়োজিত ‘কেমন বাজেট চাই’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, রেভিনিউ আদায় থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রে সুশাসন দরকার। তবে এ ক্ষেত্রে আরেকটি ক্রিটিক্যাল এলাকা হচ্ছে ব্যাংকিং খাত। ব্যাংকিং খাতের যে দুরাবস্থা আমরা দেখতে পাচ্ছি, ঋণ খেলাপির কথা আমরা বলছি। এগুলো আজকে হয়নি।

মন্ত্রী আরও বলেন, আগে যারা ব্যাংকের দায়িত্বে ছিলেন তারা একবারও চিন্তা করেননি এই ঋণখেলাপি কী? ঋণখেলাপি কেন হলো? ঋণখেলাপি আজকের সৃষ্টি না, জন্মলগ্ন থেকেই তারা ঋণখেলাপি হয়ে আসছে। এখানে একের পর এক ঋণ চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। ইন্টারেস্ট রেট যদি কারো ১০ পারসেন্ট হয় এগুলো নেওয়া হয়েছে ১৬ পারসেন্ট করে। এগুলো যতটা পারা যায় বাড়িয়ে বাড়িয়ে ধরা হয়েছে। টাকা দেওয়া হবে না, দুটি একাউন্ট করেছে— একটিতে চার্জ হবে, আরেকটিতে চার্জ হবে না। এগুলোকে রেখে দেবেন ব্লক একাউন্টে। সেটার উপরেও ইনকাম ট্যাক্স প্রভেশন ধরা হবে। সেখানেও আবার ঋণের পরিমাণ বাড়ানো হয়। এভাবে যদি চক্রবৃদ্ধি হারে ঋণ বাড়তে থাকে তাহলে কোন ব্যবসায়ী এটা শোধ দেবে? যারা এটি করেছিলেন একটিও এক্সিট রেখে আসেননি।

তিনি বলেন, অটোমেশন প্রয়োজন রয়েছে তবে এটি অর্ধেক হলো আর অর্ধেক হলো না, তাহলে দুর্নীতি কমবে না। আমরা ইতিমধ্যে ঠিক করেছি সারা বাংলাদেশে যে সব মালামাল প্রবেশ করছে, সবগুলোই স্ক্যানারের মাধ্যমে আসবে। এতে করে দুর্নীতি কমবে।

বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক বলেন, আগামী বাজেটে প্রত্যেকটি মার্কেটের জন্য প্রণোদনা প্রয়োজন। এক্সপোর্টের ক্ষেত্রে ট্যাক্স ৫ টাকা কমানো হলে এক্সপোর্ট বহুগুণে বেড়ে যাবে।

বৈঠকে রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেন, ট্যাক্স কমাতে হলে রাজস্ব বোর্ডের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। কেউ ইচ্ছা করে ট্যাক্স দিতে আসেন না। বছরে মিনিম্যাম ট্যাক্স ৫ হাজার টাকাও অনেকে দিতে চায় না। তবে কারো ওপর কোনো বোঝা চাপানো হবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ফরাস উদ্দিন বলেন, ট্যাক্স রেট কমিয়ে দেওয়া গেলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে। ’৮৩ সালে অটোমেশন প্রক্রিয়া শুরু করেছিলাম, সেটি এখনো শেষ হয়নি। সামান্য একটি বিধিতে এটি আটকে আছে।

দৈনিক কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন এলপিজি অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আজম জে চৌধুরী, কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) সভাপতি গোলাম রহমান, এনবিআর’র সাবেক চেয়ারম্যান মো. আবদুল মজিদ, বিডার নির্বাহী পরিচালক আমিনুল ইসলামসহ আরও অনেকেেই।

এসএইচ/

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি