ঢাকা, রবিবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

বায়স্কোপে মহাকাল

শাহাজাদা বসুনিয়া

প্রকাশিত : ১৩:১৩ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৩:১৩ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হে জীবন, তুমি কেন এত সুন্দর ?

রঙধনুর মতো রঙিন-রঙ ছড়ায় পলকে পরতে

কৈশোর-শৈশব মেঘহীন-মুক্ত আকাশের মত

ময়ূর পঙ্খিতে নীলাকাশ ছোঁয়া

সবকিছু বেদনাবিহীন দুরন্তপনা।

আহ ! কি আনন্দ, কি মজা!

হে জীবন, তুমি কেন চঞ্চলা ?

দুয়ারে যৌবন দাঁড়িয়ে থাকে

প্রবেশ করে দুয়ারে উন্মত্ততা

যৌবন যার-সেইতো সবল

মানে না বাধা, বিশাল সমুদ্রও মনে হয় পুকুরসম

যুদ্ধজয়ই যেন ইস্পিত লক্ষ্য।

আহ ! কি আনন্দ ! কি দারুন উন্মাদনা

হে জীবন, কেন তুমি ফ্যাকাশে ?

পৌঢ়ত্ব আমার অহংকার

কর্মহীন অলসপ্রহরে মহাকালে হাঁটি

আদিকালে চর্যাপদ মাত্রাবৃত্তে ছিলো

শাস্ত্রী পুথি সাহিত্যের খোঁজে হরপ্রসাদ নেপালে

চর্যাপদের মহিলা কবি কুক্কুরীপা

অতঃপর তমাসার যুগে জেগে থাকে শুন্যপুরাণ ও শুভোদয়া

নেপালের পুরান রাজধানী ভক্তপুরে

মূর্তিমান দাঁড়িয়ে থাকা সর্পরাজের সামনে ভক্তরা মাথানত রাখে

মধ্যযুগের শ্রীকৃষ্ণ-কীর্তন আর মনসামঙ্গল

অত:পর পৌঢ়ত্ব মুখরিত হয় আধুনিকতায়

আহ ! কি আনন্দ! কি মজা !

পৌঢ়ত্বে সুপ্ত থাকে জীবনের সব উৎসব

কৈশোর-শৈশব-যৌবন -পৌঢ়ত্ব

মানেই জীবনের পুরান-মধ্য-আধুনিকতা

সব কলোরব থেমে যায় একদা নিশ্চুপ প্রহরে

মৃত্যু, সমাপনী অনিবার্য সত্য-থাকে মহাকালে বিধৃত।

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি