ঢাকা, সোমবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, || আশ্বিন ৮ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী ৫ দিনের রিমান্ডে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:০৪ ২২ আগস্ট ২০১৯

আইএনএক্স মিডিয়া সম্পর্কিত দুর্নীতি মামলায় ভারতের প্রবীণ কংগ্রেস নেতা ও সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমকে পাঁচ দিনের রিমান্ড দিয়েছেন সেন্ট্রাল বিউরো অব ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই) আদালত। আজ বৃহস্পতিবার উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে এই রায় দেন বিচারক। এর আগে বুধবার তাকে গ্রেফতার করা হয়।

পি চিদাম্বরমকে সিবিআই ভবনের লক-আপ স্যুট-৩তে রাখা হয়েছে বলেছে এনডিটিভি। এ গণমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়।, বৃহস্পতিবার চিদাম্বরমকে আদালতে তোলার পর সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে আইনজীবী সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা জেরা করেন। 
চিদাম্বরমকে হেফাজতে নেওয়ার গুরুত্ব বোঝান তুষার। পাশাপাশি তার অভিযোগ, তদন্তে সাহায্য করছেন না সাবেক অর্থমন্ত্রী। 

তিনি বলেন, ‘তিনি চুপ থাকতেই পারেন। ওটা তার সাংবিধানিক অধিকার। কিন্তু প্রশ্ন করলে ঘুরিয়ে উত্তর দিচ্ছেন। চিদাম্বরমকে হেফাজতে নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। চার্জশিট কার্যত প্রস্তুত। তার সঙ্গে অন্যান্য অভিযুক্তদের মুখোমুখি বসিয়ে তদন্ত করতে চান সিবিআই ও ইডির আধিকারিকরা।’

জানা যায়, কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাকালীন তিনি সে সময় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন এবং তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনোমোহন সিংকে সঙ্গে নিয়ে সিবিআই ভবনের লক-আপের সুবিধাগুলো পরিদর্শন করেছিলেন। মামলার বিচারকের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, পরিবার ও আইনজীবীরা চিদাম্বরমের সঙ্গে দিনে আধ ঘণ্টা দেখা করার সুযোগ পাবেন। জেরা করার সময় তার ব্যক্তিগত সম্মানহানি যেন না হয়, তদন্তকারীদের সে দিকে খেয়াল রাখার পরামর্শ দেন বিচারক। 

পি চিদাম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন ২০০৭ সালে বিদেশ থেকে ৩০৫ কোটি টাকার তহবিল পাওয়ার জন্য আইএনএক্স মিডিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন। এর বিনিময়ে ছেলে কার্তি চিদাম্বরমের সংস্থাকে বিরাট অঙ্কের ঘুষ দেয় আইএনএক্স মিডিয়া। চিদাম্বরম ও তার ছেলের নাম জানিয়েছেন আইএনএক্স-এর যুগ্ম-প্রতিষ্ঠাতা পিটার মুখোপাধ্যায় ও ইন্দ্রানী মুখোপাধ্যায়। 

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা তাদের মেয়ে শিনা বোরাকে হত্যা করেছেন। এ মুহূর্তে তারা জেলে রয়েছেন। যদিও চিদাম্বরম ও তার ছেলে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
বর্তমানে ভারতের পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার সদস্য চিদাম্বরম অতীতে বিভিন্ন সময় অর্থমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পেনশনবিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। নির্বাচিত হয়েছিলেন নিম্নকক্ষ লোকসভার সদস্য হিসেবেও।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে চিদাম্বরমের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। বুধবার সন্ধ্যায় আচমকাই তিনি হাজির হন কংগ্রেসের সদর দফতরে। এর ৯০ মিনিট পরই গ্রেফতার হন তিনি। একই মামলায় এর আগে তার ছেলে কার্তি চিদাম্বরমকে ২৩ দিনের জন্য কারাবাস করতে হয়। এই কেলেঙ্কারিতে বেশকিছু হাই প্রোফাইল লোকজন জড়িত আছে বলে মনে করা হচ্ছে। মিডিয়া ব্যবসায়ী পিটার মুখোপাধ্যায় ও তার স্ত্রী ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়ের মতো কারাবন্দী অভিজাতদের নাম উঠে আসছে। দুজনই হত্যা মামলায় জেলে আছেন।

এমএস/এসি

 

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি