ঢাকা, রবিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৮ ২০:৫০:১৯

Ekushey Television Ltd.

মমতাকে চারে ফেলে মোদী ‘নাম্বার ওয়ান’   

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ০৬:০৯ পিএম, ৪ আগস্ট ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ০৮:৩৯ পিএম, ৪ আগস্ট ২০১৮ শনিবার

ভারতের নির্বাচনের আর বেশি সময় বাকি নেই। দরজায় কড়া নাড়ছে লোকসভা নির্বাচন। হাতে গোনা আর কয়েক মাসের অপেক্ষা। তারপরই শুরু হয়ে যাবে বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের ভোটযজ্ঞ। ইতিমধ্যেই মাঠে নেমে পড়েছেন তাবড় রাজনৈতিক নেতৃত্ব। বিভিন্ন কায়দায় চলছে প্রচার। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দল তথা বিজেপিকে চাপে ফেলতে জোটের ইঙ্গিত দিচ্ছে বিরোধী দলগুলি। চলছে দফায় দফায় বৈঠক। প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে রাহুল গান্ধীর পাশাপাশি নাম উঠে আসছে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও।   

দেশ কার পক্ষে রায় দেবে তা জানতে হলে আরও কয়েক মাস অপেক্ষা করতে হবে। তবে ইতিমধ্যেই সমীক্ষায় উঠে আসছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। I-PAC নামে একটি সংস্থা ‘ন্যাশনাল পলিটিক্যাল অ্যাকশন কমিটি’ নামে এক বিশেষ সমীক্ষা চালু করেছে। দেশের মানুষ কাকে নেতা হিসেবে দেখতে চাইছে, আর কোন কোনও অ্যাজেন্ডাকে সামনে রাখতে চাইছে, তা দেখা হচ্ছে এই সমীক্ষায়। নরেন্দ্র মোদী, রাহুল গান্ধী, অখিলেশ যাদব, মায়াবতী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ একগুচ্ছ নেতা-নেত্রী রয়েছে সেই তালিকায়। তবে সমীক্ষা বলছে, এখনও এগিয়ে মোদীই।

২৯ জুলাই থেকে শুরু হয়েছে ওই সমীক্ষা। এই ফোরামের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে ৪ লক্ষ ৮৫হাজার মানুষ, ২৮৩টি সংস্থা। এখনও পর্যন্ত যে সমীক্ষা হয়েছে, তার হিসেব বলছে, নরেন্দ্র মোদী পেয়েছেন ৪৮ শতাংশেরও বেশি ভোট। তার ঠিক পরেই রয়েছেন রাহুল গান্ধী, যদিও অনেকটাই পিছিয়ে। রাহুলের প্রাপ্ত ভোট ১৫ শতাংশ। ৮.৮ শতাংশ পেয়ে তৃতীয় স্থানে অরবিন্দ কেজরিওয়াল আর তারপর রয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রাপ্ত ৪.৩ শতাংশ। নীতিশ কুমার রয়েছেন পঞ্চম স্থানে, প্রাপ্ত ৪.২ শতাংশ।

শুধু নেতা বা নেত্রী বাছাই নয়, সাধারণ মানুষ ভবিষ্যৎ প্রধানমন্ত্রীকে বেছে দিতে পারবেন, কী হবে তাঁর অ্যাজেন্ডা। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে গান্ধীজি যে ১৮টি পথের কথা বলে গিয়েছিলেন, সেগুলিকে অ্যাজেন্ডা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কৃষক উন্নয়ন, অর্থনৈতিক সমতার মত বিষয়গুলি রয়েছে সেখানে। শনিবার পর্যন্ত সমীক্ষার হিসেবে কৃষক উন্নয়নই সবার আগে স্থান পেয়েছে। এরপরে রয়েছে ছাত্র উন্নয়ন অর্থাৎ উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থা। আগামী প্রধানমন্ত্রী আগেই বুঝে যাবেন, কোন অ্যাজেন্ডাকে হাতিয়ার করে এগোতে হবে তাঁকে।

এই অ্যাজেন্ডার প্রভাব আদতে পড়বে কিনা, তা সময়ই বলবে। তবে জনপ্রিয়তার রায়ে আপাতত নিশ্চিন্তেই থাকছেন নরেন্দ্র মোদী। কলকাতা ২৪

এসি    

 



© ২০১৮ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি