ঢাকা, মঙ্গলবার   ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

মিয়ানমারের ওপর চাপ বাড়ছে

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:০৮ ২০ নভেম্বর ২০১৯

সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা নিধন ও নিপীড়ন ইস্যুতে চাপ বাড়ছে মিয়ানমারের ওপর। আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে) বিচারের মুখোমুখি হচ্ছে দেশটি। আইসিজেতে গাম্বিয়ার মামলা আর আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) অভিযোগ তদন্তের ঘটনা দেশটিকে বৈশ্বিক পরিসরে চাপে ফেলেছে।

আগামী ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর মৌখিক শুনানির দিন ধার্য করেছেন আইসিজে। গত ১১ নভেম্বর মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আইসিজে-তে ওআইসির পক্ষে মামলাটি করে গাম্বিয়া।

এছাড়া, গত বুধবার (১৩ নভেম্বর) মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর ও নোবেল জয়ী অং সান সু চির বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনায় মামলা দায়ের করা হয়। এই প্রথম রোহিঙ্গা নির্যাতনের অভিযোগে সুচির বিরুদ্ধে কোনও মামলা দায়ের হলো।

মামলায় মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হাইং এবং অং সান সু চিসহ শীর্ষ সামরিক ও রাজনৈতিক নেতাদের বিচারের সম্মুখীন করার দাবি জানানো হয়। মামলার আর্জিতে বলা হয়, এসব ব্যক্তির কারণে অস্তিত্ব সংকটে ভুগছেন রোহিঙ্গা মুসলমানেরা। 

এদিকে, রোহিঙ্গাদের ওপর মানবাধিকার ওপর মানবতাবিরোধী অপরাধের তদন্তের জন্য জাতিসংঘের গঠিত মিয়ানমার বিষয়ক স্বাধীন তদন্ত কিমিটির একটি প্রতিনিধিদল গত সপ্তাহে কক্সবাজার সফর করেছে। গত বছর জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে বিশেষ প্রস্তাবের মধ্য দিয়ে গঠিত ওই কমিটি এ বছরের আগস্ট থেকে কাজ করছে।

কূটনৈটিক সূত্রগুলো মনে করছে, মিয়ানমার নিয়ে জাপান ও ভারতের অবস্থানের পরিবর্তন হতে যাচ্ছে। আইনি প্রক্রিয়ায় যে সিদ্ধান্ত আসবে, তা কারও আটকে দেয়ার সুযোগ নেই। ফলে চীন, রাশিয়া, ভারত ও জাপান এখন মিয়ানমারকে সমর্থন দিয়ে গেলেও একসময় আইনি পদক্ষেপকে পাশ কাটানোর সুযোগ থাকবে না।

বিশ্লেষকরা বলছেন, আইসিজে, আইসিসি ও আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা আর তদন্তের পদক্ষেপের পর এটা স্পষ্ট যে আন্তর্জাতিক পরিসরে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে, যা গত দুই বছরে ছিল না। তাই এই পদক্ষেপগুলো মিয়ানমারের ওপর বৃহৎ পরিসরে চাপ তৈরির ক্ষেত্র তৈরি করে দিল বাংলাদেশকে।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের আগস্ট থেকে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযানের নামে হত্যাযজ্ঞ চালায় মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। তাদের নৃশংসতা থেকে বাঁচতে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে সাড়ে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান।

একে//

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি