ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৩ আগস্ট ২০২০, || শ্রাবণ ২৯ ১৪২৭

Ekushey Television Ltd.

মেলানিয়া ট্রাম্পের মূর্তিতে আগুন

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৫:৪৬ ৯ জুলাই ২০২০ | আপডেট: ১৫:৪৯ ৯ জুলাই ২০২০

যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের মূর্তি পুড়ে ফেলা হয়েছে। তার আদলে তৈরি কাঠের মূর্তিটি ছিল মেলানিয়ার জন্মস্থান স্লোভেনিয়ার সেভনিকা শহরে। সেখানেই ওই 
মূর্তিটিতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয় অজ্ঞাতরা। খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

গত ৪ জুলাই আমেরিকার স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছিলেন, দেশের ঐতিহাসিক ভাস্কর্য বা স্মারক যারা উপড়ে ফেলছে কিংবা নষ্ট করছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

ঠিক ওইদিনই স্লোভেনিয়ায় মেলানিয়ার মূর্তি পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে দাবি করেছেন ভাস্কর্যটির শিল্পী ব্র্যাড ডাউনি। এর পরদিন স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় দগ্ধ মূর্তিটি সরিয়ে নেন ভাস্কর ডাউনি।

রয়টার্সকে পুলিশ জানিয়েছে, তারা এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে হোয়াইট হাউজ কিংবা মেলানিয়ার কাছ থেকে কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি। গত বছর স্লোভেনিয়ার মোরাভকে শহরে একইভাবে পোড়ানো হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একটি মূর্তিও।

২০১৯ সালের জুলাইয়ে মেলানিয়ার এই মূর্তিটি উদ্বোধন করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিষেকের দিন যে নীল রঙের কোট পরেছিলেন সেই আদলেই মূর্তিটি নির্মাণ করা হয়েছিল। 

২০১৬ সালে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর সেভনিকা পর্যটকদের টানতে থাকে। মেলানিয়ার ছোটবেলার জীবন নিয়ে কৌতূহল মেটান পর্যটকরা। স্লোভেনিয়ায় যখন বেড়ে উঠেন মেলানিয়া, তখন দেশটি যুগোস্লাভিয়ার অংশ ছিল। আর এই স্লোভেনিয়ান মডেল ৯০-এর দশকে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন অভিবাসী হয়ে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়া বর্ণবাদ বিরোধী আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে বর্ণবিদ্বেষী অনেক ব্যক্তির ভাস্কর্য ধ্বংস করে আন্দোলনকারীরা। এর অংশ হিসেবে সেন্ট্রাল স্লোভেনিয়ার সেভনিকা শহরের পাশে মেলানিয়ার ভাস্কর্যটিও পুড়িয়ে ফেলা হতে পারে বলে ধারণা করছেন অনেকে।

এএইচ/এমবি


New Bangla Dubbing TV Series Mu
New Bangla Dubbing TV Series Mu

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি