ঢাকা, বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ১ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রহমত-আসগরের ব্যাটে আফগানদের প্রতিরোধ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৫:১৪ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৫:৩৬ ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের প্রথম সেশনে তাইজুল-রিয়াদের ঘূর্ণিতে ভালো শুরু পায় বাংলাদেশ। তবে রহমত শাহ ও আসগর আফগানের ব্যাটে ঘুরে দাঁড়িয়েছে আফগানিস্তান। পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে এরইমধ্যে শতাধিক রানের জুটি গড়েছেন এই দুই ব্যাটসম্যান। 

যাতে প্রথম দিনের চা বিরতি পর্যন্ত আফগানিস্তানের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৯১ রান। প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৩ রান দূরে আছেন তিন নম্বরে নামা রহমত শাহ, ৯৩ রানে এবং আসগর আফগান ৪৮ রানে ব্যাট করছেন। টাইগার স্পিনার তাইজুল শিকার করেছেন ২ উইকেট।

এর আগে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সর্বকনিষ্ঠ অধিনায়ক হিসেবে টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রশিদ খান। ব্যাটিংয়ে নেমে সাবধানী শুরু করেন সফরকারীদের দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ইব্রাহিম জাদরান ও ইহসানউল্লাহ। 

যাতে পরিপূর্ণ স্পিন নির্ভর বাংলাদেশ তাদের প্রথম উইকেটের দেখা পায় ১৩তম ওভারে গিয়ে। আফগানদের সংগ্রহ তখন মাত্র ১৯ রান। ৩৬ বলে ৯ রান করা ইহসানউল্লাহকে বোল্ড করেন তাইজুল। এ উইকেটটি নেয়ার মাধ্যমেই ২৫ টেস্টের ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম শত উইকেট শিকারির রেকর্ড গড়েন বাঁহাতি এই স্পিনার।
    
এরপর আফগান শিবিরে দ্বিতীয় আঘাতটিও হানেন মাইলফলক ছোঁয়া তাইজুলই। তার বলে পরাস্ত হয়ে ক্যাচ তুলে দেন ইব্রাহিম জাদরান। যেটা একটু দৌঁড়ে গিয়ে লুফে নেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ইব্রাহিম ফেরেন ২১ রান করে, ৬৯ বল মোকাবেলা করে। তার ইনিংসে ছিল ৩টি চার। ফলে দলীয় ৪৮ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় সফরকারীরা।

এরপর আফাগানদের স্কোরে ৭৭ রান জমা হতেই তৃতীয় আঘাতটি হানেন পার্টটাইম বোলার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। নিজের প্রথম ওভার করতে এসেই শাহিদিকে সাজঘরের পথ দেখান রিয়াদ। ৩২ বলে ১২ রান করে সৌম্যের তালুবন্দী হন এই আফগান ব্যাটসম্যান। 

তবে এরপরই পাল্টা প্রতিরোধ গড়েন ওয়ান ডাউনে নামা ব্যাটসম্যান রহমত শাহ ও পাঁচ নম্বরে নামা আসগর আফগান। গড়ে ফেলেন শতাধিক রানের মূল্যবান এক জুটি। যার ফলে (এখন পর্যন্ত) টানা ৩৫ ওভার উইকেট বঞ্চিত রাখেন বাংলাদেশি বোলারদের, বিশেষ করে স্পিনারদের।  

এনএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি