ঢাকা, রবিবার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৩ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

রিয়াদ ৮ ঘণ্টার মধ্যে ইরানকে ধ্বংস করে দিতে সক্ষম: সৌদি প্রিন্স

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৩৮ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | আপডেট: ১৭:৩৯ ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সৌদি আরবের প্রিন্স আব্দুল্লাহ বিন সুলতান বিন নাসের আস-সাউদ দাবি করেছেন, ইরানের চেয়ে সামরিক দিক থেকে রিয়াদ অনেক বেশি শক্তিশালী। সৌদি আরব- ইরান যুদ্ধ শুরু হলে আমরা আট ঘণ্টার মধ্যে ইরানকে সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করে দিতে সক্ষম। গত বৃহস্পতিবার আরবি ভাষায় লেখা এক টুইটার পোস্টে সৌদি প্রিন্স এ দাবি করেন।

সৌদি আরবের চ্যানেল-২৪এ ২০১৬ সালের সম্প্রচারিত একটি ভিডিওর বরাত দিয়ে তিনি একথা বলেছেন। ভিডিওতে সৌদি আরবের এফ-১৫ জঙ্গিবিমান এবং ইরানের এফ-৪ ফ্যান্টম জঙ্গিবিমানের তুলনা করে সৌদি আরবের একজন বিশ্লেষক বলেছিলেন, ইরানের অস্ত্র ও সামরিক যন্ত্রপাতি অনেক পুরনো; সে তুলনায় সৌদি আরবের অস্ত্র এবং সামরিক সরঞ্জাম অনেক আধুনিক।

সৌদি প্রিন্স আব্দুল্লাহ বিন সুলতান আরো বলেন, মাঝে আরো দু'বছর চলে গেছে এবং এ সময়ে সৌদি আরব বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনেছে, নৌ শক্তি, স্থল ও বিমানবাহিনীকে অত্যাধুনিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সজ্জিত করেছে। সৌদি প্রিন্স দাবি করেন- যা গোপন আছে তা হচ্ছে অনেক বড় কিছু, বিশ্বে এমন কোন বাহিনী নেই যারা আমাদের ঐক্যের ধারেকাছে দাঁড়াতে পারে। আমাদের দৃঢ়তা আমাদের সতর্কতার জন্য আল্লাহকে ধন্যবাদ।

২০১৫ সালে সৌদি আরব প্রতিবেশী দারিদ্রপীড়িত ইয়েমেনের উপর সামরিক আগ্রাসন চালায়। এরপর চার বছর পার হয়ে গেলেও সে যুদ্ধে বিজয় লাভ করা তো দূরের কথা যে সমস্ত লক্ষ্য নিয়ে যুদ্ধ শুরু করেছিল তার একটিও অর্জন করতে পারে নি সৌদি সরকার। এ অবস্থায় নিউ ইয়র্ক টাইমস গত জুলাই মাসে এক প্রতিবেদনে বলেছে, ইয়েমেনে আটকে গেছে সৌদি আরব। ইয়েমেন নিয়ে যখন সৌদি আরবের এই অবস্থা তখন ইরান নিয়ে সৌদি প্রিন্স আব্দুল্লাহ বিন সুলতানের বক্তব্যকে নিতান্তই বাগাড়ম্বর বলে গণ্য করা হচ্ছে।

টিআই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি