ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০২৪

‘উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেল বিজিএমইএ 

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:৪৬, ১৪ নভেম্বর ২০২১ | আপডেট: ২০:৫৪, ১৬ নভেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) ২৫তম ডব্লিউসিআইটি (ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি)-এ ‘বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ ব্যবহারের জন্য টেকসই প্রবৃদ্ধি বা চক্রাকার অর্থনীতি বিভাগে (ক্যাটাগরিতে) ‘উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলনে (ডব্লিউসিআইটি ২০২১) এই অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। বিজিএমইএ এর পক্ষে পরিচালক রাজীব চৌধুরী এবং সফটওয়্যার সুল্যশন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সিসটেক ডিজিটাল লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী এম রাশিদুল হাসান এই অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন।

উইটসা এশিয়া প্যাসিফিকের ভাইস চেয়ারম্যান শহীদ-উল-মুনির বিজিএমইএ’কে এই মর্যাদাপূর্ণ অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উইটসার চেয়ারম্যান ইয়ানিস সিরস এবং মহাসচিব ডক্টর জিম এইচ পয়সান্ট ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স (ডব্লিউআইটিএসএ) হলো বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল প্রযুক্তি শিল্পের শীর্ষস্থানীয় স্বীকৃত ভয়েস, যার ৮০টিরও বেশি দেশ ও অর্থনীতির সদস্যরা বিশ্বের আইসিটি বাজারের ৯০ শতাংশ এর অধিক প্রতিনিধিত্ব করে। উইটসা অ্যাওয়ার্ডগুলো ২০২১ সালে মানবজাতির জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদানগুলোকে স্বীকৃতি দেয়।

বিজিএমইএ ২০১৩ সালে পোশাককর্মীদের জন্য একটি বায়োমেট্রিক ডাটাবেইজ তৈরির উদ্যোগ নেয়। ‘বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যাসেজমেন্ট সিস্টেম (ওয়ার্কার ডাটাবেইস) স্থানীয় এবং ক্লাউড সার্ভার ডাটাবেইজে কর্মসংস্থান এবং পরিচয় সম্পর্কিত তথ্যসহ শ্রমিকদের রেকর্ড সংরক্ষণ করে। বর্তমানে বিজিএমইএ’র সদস্যভুক্ত ২৫০০টিরও বেশি কারখানায় প্রতিদিন ৪০ লাখেরও অধিক কর্মীর জন্য এই সফটওয়্যারটি ব্যবহৃত হচ্ছে। টাইগার আইটি বাংলাদেশ এবং সিসটেক ডিজিটাল লিমিটেড এই বিশেষ সফটওয়্যার সিস্টেমটি ডেভলপ, ইন্সটল, প্রশিক্ষণ এবং রক্ষণাবেক্ষণে প্রযুক্তিগত সহায়তা দিয়ে আসছে। 

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) ২৫তম ডব্লিউসিআইটি (ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন ইনফরমেশন টেকনোলজি)-এ ‘বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম’ ব্যবহারের জন্য টেকসই প্রবৃদ্ধি বা চক্রাকার অর্থনীতি বিভাগে (ক্যাটাগরিতে) ‘উইটসা গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছে। ঢাকায় অনুষ্ঠিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতের বিশ্ব সম্মেলনে (ডব্লিউসিআইটি ২০২১) এই অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়। বিজিএমইএ এর পক্ষে পরিচালক রাজীব চৌধুরী এবং সফটওয়্যার সুল্যশন প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সিসটেক ডিজিটাল লিমিটেড এর প্রধান নির্বাহী এম রাশিদুল হাসান এই অ্যাওয়ার্ড গ্রহণ করেন।

উইটসা এশিয়া প্যাসিফিকের ভাইস চেয়ারম্যান শহীদ-উল-মুনির বিজিএমইএ’কে এই মর্যাদাপূর্ণ অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উইটসার চেয়ারম্যান ইয়ানিস সিরস এবং মহাসচিব ডক্টর জিম এইচ পয়সান্ট ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স (ডব্লিউআইটিএসএ) হলো বিশ্বব্যাপী ডিজিটাল প্রযুক্তি শিল্পের শীর্ষস্থানীয় স্বীকৃত ভয়েস, যার ৮০টিরও বেশি দেশ ও অর্থনীতির সদস্যরা বিশ্বের আইসিটি বাজারের ৯০ শতাংশ এর অধিক প্রতিনিধিত্ব করে। উইটসা অ্যাওয়ার্ডগুলো ২০২১ সালে মানবজাতির জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদানগুলোকে স্বীকৃতি দেয়।

বিজিএমইএ ২০১৩ সালে পোশাককর্মীদের জন্য একটি বায়োমেট্রিক ডাটাবেইজ তৈরির উদ্যোগ নেয়। ‘বায়োমেট্রিক আইডেন্টিটি অ্যান্ড ওয়ার্কার ইনফরমেশন ম্যাসেজমেন্ট সিস্টেম (ওয়ার্কার ডাটাবেইস) স্থানীয় এবং ক্লাউড সার্ভার ডাটাবেইজে কর্মসংস্থান এবং পরিচয় সম্পর্কিত তথ্যসহ শ্রমিকদের রেকর্ড সংরক্ষণ করে। বর্তমানে বিজিএমইএ’র সদস্যভুক্ত ২৫০০টিরও বেশি কারখানায় প্রতিদিন ৪০ লাখেরও অধিক কর্মীর জন্য এই সফটওয়্যারটি ব্যবহৃত হচ্ছে। টাইগার আইটি বাংলাদেশ এবং সিসটেক ডিজিটাল লিমিটেড এই বিশেষ সফটওয়্যার সিস্টেমটি ডেভলপ, ইন্সটল, প্রশিক্ষণ এবং রক্ষণাবেক্ষণে প্রযুক্তিগত সহায়তা দিয়ে আসছে।

আরকে//


Ekushey Television Ltd.


Nagad Limted







© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি