ঢাকা, শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, || অগ্রাহায়ণ ১৯ ১৪২৮

বেড়াতে নেয়ার নামে ইঞ্জেকশন দিয়ে রাতভর গণধর্ষণ!

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ২৩:২৬, ৩ অক্টোবর ২০১৯

গুয়াহাটি থেকে মালদায় মামার বাড়ি বেড়াতে এসে গণধর্ষণের শিকার হলেন এক যুবতী। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের মালদার বামনগোলার কুপাদহতে। বর্তমানে তিনি মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, পাকুয়াহাটে বেড়াতে যাওয়ার নাম করে তুলে নিয়ে গিয়ে ৪-৫ জন যুবক মিলে গণধর্ষণ করে ওই যুবতীকে। মাদক ইনজেকশন দিয়ে অচৈতন্য করে রাতভর গণধর্ষণ করে অভিযুক্তরা। শেষে ওই যুবতীকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করেন তার আত্মীয়-স্বজন। 

এ ঘটনায় বামনগোলা থানায় ৫ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে নির্যাতিতার পরিবার। গণধর্ষণের অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। তবে অভিযুক্তরা পলাতক। তাদের গ্রেফতারে শুরু হয়েছে পুলিশি তল্লাশি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গুয়াহাটির লঙ্কা এলাকা থেকে মায়ের সঙ্গে বামনগোলার বোকাদহ গ্রামে মামা বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলেন ২০ বছর বয়সী ওই যুবতী। তিন-চারদিন মামাবাড়িতে কাটানোর পর মায়ের সঙ্গে ওই যুবতী গিয়েছিলেন বামনগোলারই কুপাদহ গ্রামে মামার এক আত্মীয়ের বাড়িতে।

সেই সময়ই কুপাদহ এলাকার বাসিন্দা নিত্য বিশ্বাস, বিকাশ বিশ্বাসসহ আরও কয়েকজন যুবক পাকুয়াহাটে ঘুরতে যাওয়ার নাম করে ওই যুবতীকে তুলে নিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে ওই যুবতীকে তুলে নিয়ে যায় তারা। তারপর রাতভর ওই যুবতীর আর কোনও খোঁজ পায়নি পরিবার। এরপর বুধবার সকালে কুপাদহ এলাকা থেকেই ওই যুবতীকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করেন তার মামা বাড়ির লোকজন।

নির্যাতিতার অভিযোগ, নিত্য, বিকাশসহ কয়েকজন যুবক তাকে তুলে নিয়ে যায়। তারপর মাদক ইনজেকশন দিয়ে বেঁহুশ করে রাতভর গণধর্ষণ করে। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা তিনি। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছে ওই যুবতীর পরিবার। সূত্র- জিনিউজ।

এনএস/


Ekushey Television Ltd.

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি