ঢাকা, সোমবার   ২০ মে ২০২৪

আইসিসির কড়া সমালোচনায় কিউই কিংবদন্তি

প্রকাশিত : ১৫:২২, ১৫ জুলাই ২০১৯

নাটকীয়তায় পূর্ণ বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরের ফাইনাল ম্যাচে শেষ ওভারে ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। স্টাইকে বেন স্টোকস, অপর প্রান্তে আদিল রশিদ। স্বাভাবিকভাবেই দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নেন স্টোকস।

প্রথম দুই বল ডট দিয়ে তৃতীয় বলে মিড উইকেট দিয়ে ছক্কা হাকান ইংলিশ এ অলরাউন্ডার। চতুর্থ বলে আবারো মিড উইকেটে ঠেলে দিয়ে ২ রান নেয়ার চেষ্টা করেন স্টোকস। এ পথে মার্টিন গাপটিল রান আউটের আশায় থ্রো করলে, স্টোকসের ব্যাটে বল লেগে বাউন্ডারিতে চলে যায়।

ফলে ২ রানের জায়গায় ৬ রান যোগ হয় ইংল্যান্ডের স্কোর বোর্ডে। ওই বাউন্ডারিটাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

এমন অদ্ভুত নিয়মের জন্য ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসির কড়া সমালোচনা করেছেন কিউই কিংবদন্তি স্কট স্টাইরিশ। বলেছেন, আইসিসির এমন নিয়ম সত্যিই হাস্যকর। এটা কোন নিয়ম হতে পারেনা।

রোববার লর্ডসে ২৭ বছর পর ফাইনাল খেলতে নামে ইংল্যান্ড। এ নিয়ে তিনবার স্বাগতিক দেশ হিসেবে শিরোপা জয়ের হ্যাট্রিক দেখলো বিশ্ব। ১৯৭৯, ৮৭ ও ৯২ আসরের ফাইনালে গিয়ে শিরোপা হাতছাড়া করে ইংলিশরা। এবার তার পুনরাবৃত্তি হতে দেননি বাটলার-স্টোকসরা।

এর মধ্য দিয়ে ২৩ বছর পর গোটা বিশ্ব নতুন চ্যাম্পিয়ন দেখলো। গৌরবময় অর্জনের ম্যাচে বেশ খাটখড় পোড়াতে হয় মর্গানদের। ৫০ ওভারে খেলার ফলাফল নির্ধারিত না হওয়ায়, ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

সেখানেও নতুন নাটকীয়তার জন্ম নেয়। সংক্ষিপ্তসরের সে ম্যাচও টাই হয়। বাউন্ডারি সংখ্যার উপর ভিত্তি করে স্বাগতিকরা শিরোপা উঁচিয়ে ধরার সুযোগ পায়।

সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাটলার- স্টোকসের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ১৫ রান তোলে ইংল্যান্ড। জবাব দিতে নেমে শুরুটা ভালই করেছিল নিউজিল্যান্ড। কিন্তু শেষ বলে ২ রানের প্রয়োজন হলে ১ রানের জায়গায় ২ রান নিতে গিয়ে রান আউটের শিকার হোন মার্টিন গাপটিল। ফলে, ফলাফল টাই হয়ে দাঁড়ায়।

আইসিসির নিয়ম অনুসরারে কিউইদের (১৮) থেকে ইংলিশদের (২২) বাউন্ডারি বেশি হওয়ায় শেষ হাসিটা মর্গানরাই হাসে। অবসান হয় ২৭ বছরের ট্রফি খরার।  

আই/


Ekushey Television Ltd.





© ২০২৪ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি