ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৭ অক্টোবর ২০১৯, || কার্তিক ২ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ইবির নতুন প্রক্টর ড. পরেশ

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১১:৩০ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের একাংশের টানা ১১ ঘণ্টা আন্দোলনের মুখে যোগদানের দুই দিনের মাথায় পদত্যাগ করতে বাধ্য হন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) সদ্য বিদায়ী প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুব রহমান। তার জায়গায় বিশ্বদ্যিালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা ড.পরেশ বর্ম্মণকে সাময়িকভাবে প্রক্টরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।   

গতকাল রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) ড. মাহবুবের পদত্যাগের পরই নতুন প্রক্টরের নাম ঘোষণা করা হয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

এদিকে, নতুন প্রক্টর পেয়ে আন্দোলন থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছে ছাত্রলীগ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এর আগে প্রক্টরের পদত্যাগের দাবিতে গত শনিবার সকাল থেকে বিক্ষোভ করতে থাকেন সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের একাংশ। দুপুর দেড়টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক আটকে আন্দালন করেন তারা।

শনিবারই প্রক্টর পরিবর্তনের জন্য এক দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছিলেন তারা। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস সময় শেষ হলেও প্রক্টরকে পরিবর্তন করেনি প্রশাসন। আন্দোলনকারীদের কাছে সাত দিনের সময় চায় কর্তৃপক্ষ। তাতে রাজি হয়নি আন্দোলকারীরা।

ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দাবি, ২০১৪ সালে প্রক্টরের দায়িত্বে থাকা অবস্থায় ড. মাহবুব পুলিশকে ছাত্রলীগের ওপর গুলি চালানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। শিক্ষক বাণিজ্যের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত তিনি। নিয়োগ বাণিজ্যের একাধিক অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়েছে তার বিরুদ্ধে। এসব কারণে তার পদত্যাগ দাবি করেন আন্দোলনকারীরা।

রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) ক্যাম্পাসের ফটকে তালা লাগিয়ে অবরোধ করে প্রক্টরের পদত্যাগ দাবি করে তারা। ফলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী বহনকারী (শিডিউল গাড়ি) দুপুর ২টার গাড়ি ক্যাম্পাসে আটকা পড়ে। এতে চরম ভোগান্তির শিকার হন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

বিকেলে ৪টার দিকে ফটকের তালা খুলে দিলে ক্যাম্পাস থেকে গাড়িগুলো ছেড়ে যায়। পরে বিদ্রোহীরা প্রশাসন ভবনের সামনে গিয়ে অবস্থান নেয়। তারা রাত প্রায় ১০টা পর্যন্ত প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে রাখে।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরামের নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী ১৫ জনের একটি প্যানেল বিকেল সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে দেখা করে একই দাবি জানায়। এ বিষয়ে শাপলা ফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূইয়া বলেন, বর্তমান প্রক্টর (ড. মাহবুব) বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত। তাই প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত রিভিউ করার জন্য বলা হয়েছে।’

এরই প্রেক্ষিতে প্রক্টর পরিবর্তন করে অধ্যাপক ড. পরেশ বর্ম্মণকে নতুন দায়িত্ব দেয়া হয়। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত তাকে উভয় দায়িত্ব (ছাত্র উপদেষ্টা ও প্রক্টর হিসেবে) পালনের নির্দেশ দেয়া হয়।

আই/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি