Ekushey Television Ltd.

গুজরাটে আঘাত হানছে না ‘বায়ু’

প্রকাশিত : ১১:৪৯ ১৩ জুন ২০১৯

ভারতের গুজরাটে আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঘূর্ণিঝড় ‘বায়ু’ আঘাত হানবে বলে আশঙ্কা করেছিল দেশটির আবহাওয়া অধিদফতর। তবে গুজরাট উপকূলে আছড়ে না পড়ে রাতারাতি পথ বদলাল বায়ু।

দেশটির আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আপাতত এই বায়ু সরে গেছে সমুদ্রের দিকে। তবে পথ পরিবর্তন করলেও আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার জন্য পশ্চিম উপকূলে হাই অ্যালার্ট জারি রয়েছে। সমুদ্র রয়েছে উত্তাল। ঝোড়ো হাওয়া বইছে উপকূল দিয়ে। গতকালই, দিউ এবং গুজরাটের উপকূলীয় অঞ্চল থেকে তিন লাখের বেশি মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। উদ্ধার ও ত্রাণ কাজের জন্য ইতিমধ্যেই তৈরি থাকতে বলা হয়েছে ৫২ সদস্যের একটি ত্রাণ ও বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনিকে। টুইটে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

আমেদাবাদ আবহাওয়া অফিসের আধিকারিক মনোরমা মহান্তি জানিয়েছেন, গুজরাটে আছড়ে পড়ছে না সাইক্লোন বায়ু। আপাতত এর গতিপথ ভেরাভাল, পোরবন্দর এবং দ্বারকার দিকে। এর ফলে, উপকূলীয় অঞ্চলে ভারী বৃষ্টি এবং ঝোড়ো হাওয়া বইবে। গতকাল বিকেলে এই ঝড়ের আছড়ে পড়ার কথা ছিল গুরাটের উপকূলীয় অঞ্চলে।

ইতিমধ্যেই পশ্চিম রেল যাত্রা বাতিল করেছে ৭০টি ট্রেনের। যাত্রাপথ সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে ২৮টি ট্রেনের। এছাড়া সতর্কতা জারি থাকা পর্যন্ত বন্ধ থাকবে উপকূলীয় অঞ্চলের সমস্ত স্কুল। বিপর্যয় এড়াতে ডুবুরিদের সমুদ্রের ধারে অবস্থানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল মধ্য রাত থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে পোরবন্দর, দিউ, ভাবনাগর, কেশোদ আর কান্দলার বিমানবন্দর। আবহাওয়ার অবস্থা বুঝে বন্ধ রাখা হবে সুরাট বিমানবন্দরও।

সাইক্লোন বায়ুর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে মুম্বাইতেও। এর ফলে, মুম্বাই বিমানবন্দর থেকে ৪০০টি বিমান বাতিল হতে পারে। পিটিআই জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই ১৯৪টি বিমান দেরিতে ছেড়েছে। বিমানবন্দরে দেরিতে এসে পৌঁছায় ১৯২টি বিমান।

এনডিআরএফ, উপকূলীয় নিরাপত্তা রক্ষী বাহিনি, সেনাবাহিনি, নৌবাহিনি, বিমান বাহিনি এবং সীমান্তের সেনাবাহিনিকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গুজরাট উপকূলের দুটি প্রধান বন্দর, কোচ উপসাগরের আদানি ও দিনদয়াল থেকে জাহাজ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে গতকাল থেকে।

সমুদ্রে ১৫ জুন পর্যন্ত মতস্যজীবীদের মাছ ধরতে যাওয়া না যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে গুজরাট সরকার। মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি সোমনাথ দ্বারকা, সাসান, কুচ থেকে আপাতত নিরাপদ স্থানে চলে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন পর্যটকদের।

নরেন্দ্র মোদি আবহাওয়াবিদ, সরকার এবং স্থানীয় সংস্থাগুলোর রিয়েল টাইমের দেওয়া তথ্য নির্দেশ মেনে চলার কথা জানিয়েছেন। একই সঙ্গে সাইক্লোন প্রভাবিত অঞ্চলের মানুষদের নিরাপত্তার জন্য প্রার্থনা জানিয়েছেন তিনি।

সূত্র: এনডিটিভি

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি