ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

দিল্লিতে ভয়াবহ দূষণ: ঘুরিয়ে দেওয়া হলো ৩২ বিমান

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৩:৪৯ ৪ নভেম্বর ২০১৯

ক্রমশই যেন দূষণ বাড়ছে ভারতে রাজধানী দিল্লিতে। গতকাল রোববার দিল্লিতে দূষণের মাত্রা ৬০০ ছাড়িয়ে যাওয়ার কারণে ৩২টি বিমানের গতিপথ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। এর আগে শনিবার যেখানে দিল্লিতে দূষণের মাত্রা ছিল ৪০৭, সেখানে রোববার বাতাসে বায়ুদূষণের সূচক বা একিউআই বেড়ে ৬২৫-এ পৌঁছে যায়। খবর এনডিটিভি’র।

জানা যায়, গোটা শহর জুড়ে এতটাই ঘন ধোঁয়া ছড়িয়ে পড়ে যে শ্বাস নেওয়াও দুষ্কর হয়ে দাঁড়াচ্ছিল। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল এই পরিস্থিতিকে ‘অসহনীয়’ আখ্যা দিয়ে বলেন, যে দিল্লির মানুষ এমন ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন যাতে ‘তাঁদের কোনও দোষ নেই’। দিল্লির পার্শ্ববর্তী অঞ্চলগুলিতেও দূষণের মাত্রা অত্যন্ত বেশি ছিল, উত্তরপ্রদেশের নয়ডায় দূষণের কারণে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সমস্ত স্কুল বন্ধ রাখার ঘোষণা করা হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, সোমবার এই দূষণ রোধের বিষয়ে কী পদক্ষেপ করা যায় তা নিয়ে বিবেচনা করবে সুপ্রিম কোর্ট।

এ বিষয়ে ১০টি তথ্য:

১. দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল একটি টুইট করেন, ‘উত্তর ভারতজুড়ে দূষণ অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। দিল্লি সরকার অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। দিল্লিবাসীও অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছে। দিল্লির মানুষ তাঁদের কোনও দোষের জন্য এই ভোগান্তি পোহাচ্ছেন না। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীও এ দূষণ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কেন্দ্রকে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। ত্রাণ সরবরাহের পদক্ষেপও নেওয়া উচিত। দূষণ রোধে কেন্দ্রের নেওয়া সমস্ত উদ্যোগকে আমরা সমর্থন করব।’

২. কম দৃশ্যমানতার কারণে ৩২ টি বিমানকে দিল্লি বিমানবন্দর থেকে গতিপথ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়, দিল্লি বিমানবন্দরের তরফে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে এই কথা। এর মধ্যে ১২ টি এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানও ছিল। 

৩. সোমবার সুপ্রিম কোর্ট দিল্লির বাতাসের গুণমান পরীক্ষা করে দেখবে এবং প্রতিবেশী রাজ্যগুলিতে খড়-পোড়ানোর জন্যে সৃষ্ট দূষণ সম্পর্কে পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ বা ইপিসিএর কাছ থেকে একটি প্রতিবেদন পর্যালোচনা করবে বলেও আশা করা হচ্ছে।

৪. দূষণ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা আদালতকে কেন্দ্রশাসিত রাজ্যগুলিতে বর্জ্য জ্বালানি, শিল্প থেকে বিষাক্ত নির্গমন এবং নির্মাণ প্রকল্প থেকে ধুলাবালি বন্ধ করতে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশনা জারি করার পরামর্শ দিয়েছে।

৫. পাঞ্জাব বা হরিয়ানায় কৃষকরা খড় পোড়ানোর ফলে প্রতি শীতে দিল্লি এবং আশেপাশের অঞ্চলে এই সংকট দেখা দেয়, এমন অভিযোগ উঠলেও ঐ দুই রাজ্যের তরফ থেকে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে উভয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীই দূষণ রোধে কেন্দ্রকে নেতৃত্ব দেওয়ার অনুরোধ করেছেন।

৬. অরবিন্দ কেজরিওয়ালও কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে ক্ষতিগ্রস্থ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা বলেছেন। তবে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনও কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি।

৭. ‘আমরা দূষণ রোধে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছিলাম এবং সকলেই একত্রিত হয়েছিল এই প্রক্রিয়ায়, তা সত্ত্বেও, কেন আমরা এই ঝক্কি নেবো?’ রোববার বিকেলে একটি ভিডিও ভাষণে বলেন দিল্লি মুখ্যমন্ত্রী। ‘সমস্ত সরকার একত্রিত হয়ে বসে আলোচনা করুক। পাঞ্জাব ও হরিয়ানায় ২৭ লক্ষ কৃষক রয়েছেন। আমরা কীভাবে তাঁদের সকলের কাছে পৌঁছবো? আমাদের আরও কত বছর সময় লাগবে এই সমস্যার সমাধানে? এই বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করা দরকার।’ বলেন তিনি।

৮. দিল্লি সোমবার থেকে জোড়-বিজোড়-রোড রেশন স্কিম শুরু করছে, যা ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে। এই নিয়ম অনুযায়ী, একদিন অন্তর একদিন রাজধানীর রাস্তায় চলবে জোড়-বিজোড় রেজিস্ট্রেশন প্লেটযুক্ত যানবাহনগুলি। এছাড়া মঙ্গলবার পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখা হয়েছে সেখানে।

৯. জানুয়ারির পর থেকে এই প্রথমবার  দূষণের মাত্রার পরিমাণ ‘জরুরি’ বিভাগে পৌঁছয়। পরিবেশ দূষণ (প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ) কর্তৃপক্ষ শুক্রবারই রাজধানী অঞ্চলের এই দূষণের পরিপ্রেক্ষিতে জনস্বাস্থ্য ক্ষেত্রে জরুরি অবস্থার ঘোষণা করেছে।

১০. শনিবার, উপ-মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরকে কেন্দ্রীয় পরিবেশমন্ত্রীদের সঙ্গে তিনবার বৈঠক স্থগিত করার জন্য অভিযুক্ত করেন। ১২ সেপ্টেম্বর, ১৭ অক্টোবর এবং ১৯ অক্টোবর, তিনবার বৈঠকের জন্য দিন ঠিক হয়েও তা বাতিল হয়ে যায়। সিসোদিয়া কটাক্ষ করে বলেন যে, রাজধানীতে দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের কোনও সময়ই নেই।  

এমএস/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি