ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ নভেম্বর ২০১৯, || অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬

Ekushey Television Ltd.

ফের বিজয়ী হয়ে যা বললেন জাস্টিন ট্রুডো

একুশে টেলিভিশন

প্রকাশিত : ১৭:২২ ২২ অক্টোবর ২০১৯ | আপডেট: ১৭:৩৬ ২২ অক্টোবর ২০১৯

নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছাড়াই কানাডায় সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন দেশটির উদারপন্থী রাজনীতিক হিসেবে পরিচিত জাস্টিন ট্রুডো। ৩৩৮ আসনের পার্লামেন্টে এককভাবে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ১৭০টি আসন। তবে সোমবারের নির্বাচনে ট্রুডোর লিবারেল পার্টি অব কানাডা সর্বোচ্চ সংখ্যক আসনে বিজয়ী হলেও নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে।  ফলে দলটিকে এখন একটি সংখ্যালঘু সরকার গঠন করতে হবে।

কানাডার ৪৩তম জাতীয় নির্বাচনে ১৫৬ আসন পেয়ে জযী হয়েছে প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি। এর মধ্য দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো কানাডার প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন জাস্টিন ট্রুডো। আবারও দলের প্রতি আস্থা রাখায় দেশের জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ট্রুডো। 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসে ট্রুডো বলেন, “ধন্যবাদ, কানাডা। সঠিক নির্দেশনায় দেশ পরিচালনায় আমাদের দলের প্রতি বিশ্বাস ও আস্থা রাখার জন্য। আপনারা যাকেই ভোট দিন, আমাদের দল সবার জন্যই কাজ করবে।”

১০টি প্রদেশ নিয়ে গঠিত কানাডা আয়তনের দিক থেকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। প্রায় চার কোটি মানুষের দেশটিতে এবারের নির্বাচনে মোট ছয়টি রাজনৈতিক দল অংশ নিয়েছে। নির্বাচনি প্রচারণায় নিজের উদার অভিবাসননীতি নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েন জাস্টিন ট্রুডো।

জলবায়ু ইস্যুতেও তার বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থতার অভিযোগ ওঠে। তবে দুই ডজনেরও বেশি কানাডিয়ান শিক্ষাবিদের স্বতন্ত্র পর্যালোচনায় উঠে এসেছে, ২০১৫ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর জাস্টিন ট্রুডো তার নির্বাচনি প্রতিশ্রুতির ৯২ শতাংশই পূর্ণাঙ্গ কিংবা আংশিকভাবে বাস্তবায়ন করেছেন। গত ৩৫ বছরে অন্য যে কোনও কানাডিয়ান সরকারের চেয়ে তার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের হার সর্বোচ্চ।

সূত্র. আল জাজিরা
 
টিআর/

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। একুশে-টেলিভিশন | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি